শিগগিরই রেলবহরে অ্যাম্বুলেন্স সেবা: রেলপথ মন্ত্রী

ঢাকা, শনিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১,   ফাল্গুন ১৪ ১৪২৭,   ১৪ রজব ১৪৪২

শিগগিরই রেলবহরে অ্যাম্বুলেন্স সেবা: রেলপথ মন্ত্রী

পঞ্চগড় প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:০২ ২৪ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৯:১২ ২৪ জানুয়ারি ২০২১

রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন

রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন

রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, রোগীদের পরিবহণের জন্য শিগগিরই রেলবহরে যুক্ত হবে অ্যাম্বুলেন্স সেবা। আর এর মাধ্যমে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সের মতো রোগিরা খুব সহজেই তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবেন।

রোববার দুপুরে পঞ্চগড় বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশনে রেলবহরে কৃষিজসহ বিভিন্ন পণ্য পরিবহন সংক্রান্ত মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, পণ্য পরিবহনের জন্য রেলবহরে অত্যাধুনিক ২০০ লাগেজ ভ্যান আমদানি করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে ব্যবসায়ীরা প্রান্তিক এলাকা থেকে খুব সহজেই তাদের কৃষিজসহ বিভিন্ন পণ্য রেলে পরিবহন করতে পারবেন। এজন্য এজেন্ট নিয়োগ করা হবে। তাদের কাজ হবে পণ্যগুলো সঠিকভাবে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে দেয়া। 

মন্ত্রী বলেন, সরকার সড়ক, নৌ, বিমান ও রেল পরিবহনকে সমানভাবে জনগণের ব্যবহার উপযোগী করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। মানুষ এখন রেলে খুব সাশ্রয় ও নিরাপদে যাতায়াত করতে পারে। আমাদের নিজস্ব নিরাপত্তা বাহিনী রয়েছে। তাই মানুষ সড়ক পথের চেয়ে এখন রেলে বেশি যাতায়াত করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করে। আগামী ২৬ মার্চ চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রুট দিয়ে শিলিগুড়ি পর্যন্ত যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা দিয়ে শিলিগুড়ি পর্যন্ত রেলযোগাযোগ স্থাপন করা হবে এবং ক্রমান্বয়ে ভারত নেপাল ও ভুটানের সঙ্গে এ রুটেই রেলযোগাযোগ স্থাপন করা হবে। আমরা চেষ্টা করছি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে রেলপথে যোগাযোগ স্থাপন করার। শিগগিরই পঞ্চগড় থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত ট্রেনযোগাযোগ চালু হবে। এরই মধ্যে খুলনা থেকে মংলা পর্যন্ত রেল যোগাযোগ সম্প্রসারণের কাজ চলমান রয়েছে। ২০২২ সালের মধ্যে এ কাজ শেষ হবে। এতে বন্দর নেপাল, ভুটান ও ভারত ব্যবহার করতে পারবে, সে সুযোগ তৈরি হচ্ছে। যমুনা নদীর উপর ডাবল লাইনের রেলসেতু তৈরি হচ্ছে। এটি হবে দেশের সবচেয়ে বড় রেলসেতু। 

মতবিনিময় সভায় অন্যদের মধ্যে রেলওয়ের মহাপরিচালক শামছুজ্জামান, রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক মিহির কান্তি গুহ, পঞ্চগড়ের এসপি মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত সম্রাট, রোলিংস্টোক অপারেশন উন্নয়ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মিজানুর রহমান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলামসহ জেলার পণ্য বাজারজাতকরণ ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ