পাবনায় ‘স্বপ্নের নীড়’ পাচ্ছেন ১০৮৬ পরিবার

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০৯ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ২৪ ১৪২৭,   ২৪ রজব ১৪৪২

পাবনায় ‘স্বপ্নের নীড়’ পাচ্ছেন ১০৮৬ পরিবার

পাবনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:০৩ ২২ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ২২:০৩ ২২ জানুয়ারি ২০২১

গৃহহীন পাচ্ছেন ‘স্বপ্নের নীড়’ (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

গৃহহীন পাচ্ছেন ‘স্বপ্নের নীড়’ (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

‘আশ্রয়নের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে মুজিব জন্মশতবর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে পাবনায় ১ হাজার ৮৬ ভূমিহীন ও গৃহহীন পাচ্ছেন ‘স্বপ্নের নীড়’। পাবনা ডিসি কবীর মাহমুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রায় ১৯ কোটি টাকা ব্যয়ে (প্রত্যেকটি বাড়ি ১ লাখ ৭১ হাজার ৪শ টাকা) মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ১ম পর্যায়ে গৃহহীনদের মাঝে দুই শতক জমিসহ গৃহ হস্তান্তর করা হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে জেলার ৯ উপজেলার ১ হাজার ৮৬টি পরিবার গৃহহীন আশ্রয়ন প্রকল্পে দুই শতক জমিসহ সেমি পাকা বাড়ি পাবেন। দুটি কক্ষের বাড়িতে থাকবে ইটের দেয়াল, কংক্রিটের মেঝে এবং রঙিন টিনের ছাউনি। বাড়িতে থাকছে একটি রান্নাঘর, টয়লেট ও সামনে খোলা বারান্দা।

সূত্র জানান, ইউপি চেয়ারম্যানরা ছিন্নমূল ও ভূমিহীন পরিবারের তালিকা পাঠান সংশ্লিষ্ট দফতরে। সেসব তথ্য উপজেলা ভূমি অফিস থেকে জমি-বাড়ি নেই এমন পরিবারের তালিকা যাচাই-বাছাই করে পাঠানো হয় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে। এরপর গৃহহীনদের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়। ঘরগুলো যেন টেকসই এবং মানসম্মত হয় সেজন্য জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের মনিটরিং কমিটি নিয়মিত তদারকি করছেন। এরমধ্যে ঘরগুলো নির্মাণ কাজ প্রায় শেষপর্যায়ে। পাবনা সদর উপজেলায় ৪৪৯, সাঁথিয়ায় ৩৭২, আটঘরিয়ায় ৮৫, ফরিদপুরে ৫০, ঈশ্বরদীতে ৫০, চাটমোহরে ৩০, সুজানগরে ২০, বেড়ায় ২০ এবং ভাঙ্গুড়া উপজেলায় ১০টি পরিবার এই স্বপ্নের নীড় পাবেন।

ডিসি কবীর মাহমুদ জানান, প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার মুজিববর্ষে একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না। প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণাকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এই কার্যক্রম। প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীনরাই পাবেন এ ঘরগুলো। এর ফলে পরিবারগুলো পাবেন সামাজিক মর্যাদা ও নতুন ঠিকানা। ঘর বরাদ্দে কোনো ধরনের অনৈতিক সুযোগ-সুবিধা না নিতে পারে সে জন্য সঠিকভাবে তদারকি করা হচ্ছে। পাশাপাশি নির্মাণাধীন ঘরের কাজের মান শতভাগ ঠিক রাখতে নিয়মিত মনিটরিং করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম