শ্যালকের সঙ্গে বিতণ্ডা, স্ত্রীকে পিস্তল দিয়ে মারলেন স্বামী

ঢাকা, শনিবার   ০৬ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ২২ ১৪২৭,   ২১ রজব ১৪৪২

শ্যালকের সঙ্গে বিতণ্ডা, স্ত্রীকে পিস্তল দিয়ে মারলেন স্বামী

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৪৩ ২০ জানুয়ারি ২০২১  

ধামরাই থানা

ধামরাই থানা

ঢাকার ধামরাইয়ে তুচ্ছ ঘটনায় পিস্তল দিয়ে স্ত্রীকে মারপিটের সময় গ্রাম পুলিশের হাতে আটক হন বাবর আলী নামের এক ব্যক্তি। তাকে সূয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদে আনার পর উত্তম-মধ্যম দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। তার স্ত্রীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ঘটনাটি ঘটেছে সূয়াপুর ইউনিয়নের কুটিরচর গ্রামে। আটক বাবর আলী কুটিরচর গ্রামের মৃত সামসুল হকের ছেলে।

এলাকাবাসী জানায়, বাবর আলী ও তার শ্যালক মনির হোসেন কিছুদিন আগে একসঙ্গে একটি বাস কেনেন। ওই বাস ঢাকার গাবতলী থেকে সুয়াপুর রুটে চলাচল করে। বাসটি গাবতলী থেকে সাটুরিয়া রুটে চলাচলের জন্য শ্যালককে প্রস্তাব দেন বাবর আলী। এ নিয়ে দুইজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এরই জেরে স্ত্রী রৌশনারাকে মারধর করেন বাবর আলী। এক পর্যায়ে পিস্তল বের করে স্ত্রীর মাথায় আঘাত করেন তিনি। এতে গুরুতর আহত হন রৌশনারা। বিষয়টি টের পেয়ে ছুটে এসে পিস্তলসহ তাকে আটক করেন এক গ্রাম পুলিশ সদস্য। পরে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে উত্তম-মধ্যম দেয়া হয় বাবর আলীকে। সেখান থেকে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

ধামরাই থানার ওসি আতিকুর রহমান জানান, পিস্তলসহ বাবর আলীকে আটক করে থানায় নেয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আহত রৌশনারাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর