আইন বিষয়ে পড়াশুনা না করেও তারা ‘ব্যারিস্টার’

ঢাকা, রোববার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১,   ফাল্গুন ১৫ ১৪২৭,   ১৫ রজব ১৪৪২

আইন বিষয়ে পড়াশুনা না করেও তারা ‘ব্যারিস্টার’

চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৩:১৩ ২০ জানুয়ারি ২০২১  

অভিযুক্ত প্রতারক

অভিযুক্ত প্রতারক

আইন বিষয়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোনো পড়া-লেখা করেননি, নেই এলএলবি সনদ বা বার কাউন্সিলের অনুমোদন। তারপরেও তারা সাধারণ মানুষের কাছে ব্যারিস্টার হিসেবেই পরিচিত। আদালতে দালালের মাধ্যমে ক্লায়েন্ট বাগিয়ে এনে মামলায় জামিন করিয়ে দেয়ার নাম করে হাতিয়ে নিতো লাখ লাখ টাকা।

কথিত ব্যারিস্টার কামরুল ইসলাম হৃদয় এবং জসীম উদ্দিনকে আটকের পর বের হয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর এসব তথ্য।

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি কার্যালয়ে রশি দিয়ে বেঁধে রাখা হয় কথিত ব্যারিস্টার কামরুল ইসলাম হৃদয় এবং জসীম উদ্দিনকে। অথচ ধরা পড়ার কিছুক্ষণ আগেও দাপটের সঙ্গে কামরুল ইসলাম হৃদয় ব্যারিস্টার পরিচয়ে মামলা থেকে জামিন করানোর পাশাপাশি বিবাহ বিচ্ছেদ করিয়ে দেয়ার নাম করে হাতিয়ে নিয়েছেন হাজার হাজার টাকা। আর জসীম উদ্দিন তো উচ্চ আদালত থেকে জামিন করিয়ে দেয়ার বিজ্ঞাপন হিসেবে বিজনেস কার্ডও তৈরি করেছেন।

জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ এইচ এম জিয়াউদ্দিন জানান, সাধারণ মানুষের অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় দুজনকে আটক করে আইনজীবী সমিতি। অনুসন্ধানে দেখা যায়, তারা কেউই আইন পেশার সঙ্গে সম্পৃক্ত নন। এমনকি চট্টগ্রামের পাশাপাশি ঢাকাতেও প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে এ দুজনের বিরুদ্ধে।

আটক দুজনই প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন, আইন পেশায় কোনো অভিজ্ঞতা না থাকলেও তারা নিজেদের ব্যারিস্টার এবং আইনজীবী হিসেবে পরিচয় দিতেন। প্রতারক আটকের ঘটনায় চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানায় আলাদা দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম