নতুন বউকে মোটরসাইকেলে নিয়ে বাড়িতে এলেন বর

ঢাকা, রোববার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১,   ফাল্গুন ১৫ ১৪২৭,   ১৫ রজব ১৪৪২

নতুন বউকে মোটরসাইকেলে নিয়ে বাড়িতে এলেন বর

মাগুরা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০২:৫৮ ২০ জানুয়ারি ২০২১  

নতুন বউকে মোটরসাইকেলে নিয়ে বাড়িতে এলেন বর

নতুন বউকে মোটরসাইকেলে নিয়ে বাড়িতে এলেন বর

মাগুরার শালিখা উপজেলার আড়পাড়া এলাকার জুয়েল মুন্সী বিয়ে করে নতুন বউকে মোটরসাইকেলে নিয়ে বাড়িতে ফিরেছেন। বরযাত্রী থেকে শুরু করে বাড়ির নতুন বউ আনা সব কাজ করেছেন মোটরসাইকেলে।

বর জুয়েল মুন্সীর দাবি, তিনি এলাকায় প্রথম মোটরসাইকেলে গিয়ে বিয়ে করলেন। আর তার এ বিয়ে এখন এলাকায় ব্যাপক আলোচিত হচ্ছে।

জুয়েল আড়পাড়া এলাকার মহর আলী মুন্সীর ছেলে। তিনি সোমবার (১৮ জানুয়ারি) মাগুরা সদরের ইছাখাদা এলাকার আক্কাস মোল্যার মেয়ে লিমাকে বিয়ে করেন।

বর জুয়েল মুন্সী বলেন, ছোটবেলা থেকে তিনি মোটরসাইকেল চালানোর ভক্ত। পড়ালেখা বলতে কলেজের গন্ডি পার হয়ে তিনি মালয়েশিয়া চলে যান। বিদেশে ছয় বছর থেকে দেশে ফিরে আসেন। এখন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত। মোটরসাইকেল চালানো আর নতুন মডেলের বাইক পরিবর্তন করাই জুয়েলের শখ। জুয়েলের মাথায় আসে তিনি বিয়ে করবেন মোটরবাইকে। যে কথা সেই কাজ। বিয়ের আগে নতুন মডেলের তিন লাখ টাকা দিয়ে টারো জিপি ১ নামের একটি মোটরবাইক কেনেন।

হবু বধূ লিমার সঙ্গে তার সাত বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। পরে পারিবারিকভাবে বিয়ের দিন তারিখ নির্ধারিত হয়। সোমবার বিকেলে ২৭টি মোটরবাইকে করে বরযাত্রী, বন্ধু, আত্মীয়-স্বজন নিয়ে মাগুরার ইছাখাদা কনের বাড়িতে যান। বিয়ের সব কাজ শেষ করে নতুন বউ নিয়ে তিনি মোটরবাইকে শোভাযাত্রা করে নিজের বাড়ি নিয়ে আসেন।

অভিনব এই বিয়েতে এলাকায় সাড়া পড়ে। রাস্তার দুই পাশে লোকজন ভিড় করেন নব দম্পতিকে দেখতে। মাগুরা বাইকার নামে ফেসবুক গ্রুপে ছবি ও ভিডিও পোস্ট করা হয়। এখানে গ্রুপের সদস্যরা এই দম্পতিকে শুভ কামনা জানান।

জুয়েল মুন্সীর বন্ধুরা বলেন, বাইক প্রেমিক বন্ধু জুয়েল বাইকে করে বিয়ে করতে পারায় তার সঙ্গে আমরাও আনন্দিত। তাদের সামনের দিনগুলো ভালো কাটুক।

ফেসবুকে মাগুরা বাইকার গ্রুপের পরিচালক ফয়সাল বলেন, জুয়েলের বাইকে অভিনব বিয়ের বিষয়টি তাদের গ্রুপে সাড়া ফেলেছে।

জুয়েলের বাবা মহর আলী মুন্সী জানান, আমাদের সমাজে মোটরসাইকেলে বিয়ে করার রেওয়াজ নেই। বিষয়টি অনেকেই অন্যভাবে নিচ্ছেন। তারপরও ছেলে নাছোড়। তার শখ পূরণ করতেই এমন আয়োজন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম