জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার

ঢাকা, শনিবার   ০৬ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ২২ ১৪২৭,   ২১ রজব ১৪৪২

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার

লালমনিরহাট প্রতিনিধি   ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৪৪ ১৭ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৭:৪৭ ১৭ জানুয়ারি ২০২১

চারটি গ্রামের মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসা ওই বাশেঁর সাঁকো।

চারটি গ্রামের মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসা ওই বাশেঁর সাঁকো।

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কবি শেখ ফজলল করিমের স্মৃতি বিজরিত এলাকার নাম কাকিনা ইউনিয়ন। দীর্ঘদিন থেকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার হচ্ছেন এই ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধাসহ হাজার হাজার মানুষ। এই ইউনিয়নের চারটি গ্রামের মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসা ওই বাশেঁর সাঁকো।

জানা যায়, লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা ইউনিয়নের পূর্ব রুদ্রেশ্বর মণ্ডল পাড়া এলাকায় প্রবাহিত তিস্তার শাখা নদীর উপর বহুবছর পূর্বে নির্মিত হয় একটি বাঁশের সাঁকো। দেশ স্বাধীনের পর থেকে এই শাখা নদীর ওপর এলাকাবাসী নিজস্ব অর্থায়নে প্রতিবছর বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেই যাতায়াত করে আসছেন। সেই বাঁশের সাঁকোটিও এখন নড়বড়ে অবস্থা। এই সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করতে গিয়ে অনেকে ছোটখাটো দুর্ঘটনার কবলেও পড়েছেন।

শনিবার (১৬ জানুয়ারী) সরেজমিনে দেখা যায়, নদী পারাপারে একমাত্র মাধ্যম একটি পুরাতন বাঁশের সাঁকো। সাঁকোটির ছবি তুলতে গিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে থেকে বলা হচ্ছিল ছবি তুলে কি করবেন? আমাদের দুঃখ দুর্দশা দেখার মতো কেউ নেই। এর আগেও আপনার মতো অনেকে ছবি তুলে নিয়ে গেছেন। এর পরেও আমাদের এই দুর্দশার পরিবর্তন হয়নি। এভাবে সাঁকোটির মাঝ পথে ছবি তোলা অবস্থায় কাছে এসে দাঁড়িয়েছেন ৭০/৭৫ বয়সের এক বৃদ্ধ।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ৪ গ্রামের মানুষের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা এই বাঁশের সাঁকো। এই বাঁশের সাঁকো দিয়ে প্রায় কয়েক হাজার মানুষ যাতায়াত করেন। ঐ এলাকার সওদাগর মণ্ডল, নুর ইসলাম, মোজাম্মেল হক সোনা মিয়াসহ আরো অনেকে বলেন, নির্বাচনের সময় ব্রিজ করে দিবে বলে সবাই আশ্বাস দিয়ে ভোট নিয়ে যায়। এলাকাবাসী ভোট দেয় প্রতিনিধি নির্বাচিত হয় কিন্তু এখানে ব্রীজ আর হয় না! 

কালীগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফেরদৌস আহমেদ ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, বিষয়টি জানা ছিলো না তবে যেহেতু আপনার মাধ্যমে জানতে পেলাম দু’একদিনের মধ্যে সরেজমিনে দেখে এলাকা পরিদর্শন করে সেতু নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ করার জন্য সংশ্লিষ্ট দফতরে পাঠানো হবে।

কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহাবুবুজ্জামান আহমেদ ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, যত দ্রত সম্ভব জনগণের কষ্ট লাঘবে সেখানে দ্রুত একটি ব্রিজ নির্মাণ করে দেয়া হবে।

কালীগঞ্জের ইউএনও রবিউল ইসলাম ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, বিষয়টি তার জানাও ছিল না। যেহেতু আজ জানতে পারলেন বিষয়টি তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবগত করবেন এবং যত দ্রুত সম্ভব সেখানে একটি ব্রিজ নির্মাণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ করবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম