আতঙ্কের আরেক নাম চাকা বিস্ফোরণ

ঢাকা, শুক্রবার   ২২ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৯ ১৪২৭,   ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

আতঙ্কের আরেক নাম চাকা বিস্ফোরণ

রিফাত আহমেদ রাসেল, নেত্রকোনা ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:১৯ ১৩ জানুয়ারি ২০২১  

খানিক পরেই জানা গেলো কোনো বিস্ফোরক নয় আসলে শব্দটি হয়েছে বালুবাহী ট্রাকের পেছনের চাকা ফাটার কারণে।

খানিক পরেই জানা গেলো কোনো বিস্ফোরক নয় আসলে শব্দটি হয়েছে বালুবাহী ট্রাকের পেছনের চাকা ফাটার কারণে।

ব্যস্ততম সড়কে হঠাৎ বিকট শব্দ। আতঙ্কে দিক বেদিক ছোটাছুটি পথচারীদের। খানিক পরেই জানা গেলো কোনো বিস্ফোরক নয় আসলে শব্দটি হয়েছে বালুবাহী ট্রাকের পেছনের চাকা ফাটার কারণে।

এরকম ঘটনার সাথে এখন অনেকটাই পরিচিত নেত্রকোনার দুর্গাপুরের বাসিন্দারা। গাড়িতে ধারণক্ষমতার মাত্রাতিরিক্ত বালু পরিবহন করায় প্রায়ই ঘটছে এরকম বিস্ফোরণের ঘটনা।

বিস্ফোরণের ঘটনায় বাতাসের সাথে তীব্র বেগে বালু ও পাথরে কণা চোখে মুখে গিয়ে আহত হচ্ছেন সাধারণ পথচারীরাও। অনেক সময় বড় বড় পাথরের আঘাতে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের কাচের আসবাবপত্র ভেঙেও ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। এছাড়াও আচমকা তীব্র শব্দ সইতে না পেরে হুশ হারিয়ে ফেলছেন অনেকেই।

মঙ্গলবার বিকেলেও এমনই এক ঘটনায় আহত হন পথচারীসহ কয়েকজন ব্যবসায়ী। পৌর শহরের উকিলপাড়া রোডে বিস্ফোরণ হয় বালু বোঝাই একটি ট্রাকের পেছনের চাকা।

স্থানীয়রা প্রায় তিন ঘণ্টা সড়কে বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে পুলিশ এসে বালুবাহী ট্রাকটিকে থেকে জব্দ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে ।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত বিরিশিরি ইউনিয়নের দাখিলাই গ্রামের মতীন্দ্র চন্দ্রের পুত্র পলক চন্দ্র দাসকে নেয়া হয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। সন্ধ্যায় অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয় ময়মনসিংহ  মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ।

স্থানীয়রা জানায়, পৌর শহরের প্রতিটি সড়ক দখল করে অপরিকল্পিতভাবে সোমেশ্বরী নদীর বালু পরিবহনে বেহাল সড়কগুলো। তার উপর শুকনা মৌসুমে ভেজা বালু পরিবহন করে সড়কগুলোতে তৈরি হয়েছে বড় বড় খানাখন্দ আর কাঁদার স্তুপ। ফলে রাস্তার এপার থেকে ওপার যাওয়াই যেনো দুষ্কর হয়ে দাঁড়িয়েছে। এছাড়াও সড়কগুলো দখল করে অবাধে চলছে অবৈধ লড়ি গাড়ি । তীব্র শব্দের এই যানগুলো দিনরাত চলায় নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে পৌর শহরের বাসিন্দারা। তারপর আচমকা চাকা বিস্ফোরণের ঘটনা সড়কের বের হয় যেনো দায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, সড়কগুলো এখন বালু বোঝাই ট্রাক দখল করে নিয়েছে। একদিকে ভেজা বালু অপরদিকে এই ভেজা বালুর পানি পড়ে রাস্তাঘাট চলাফেরাই করা যায় না। তার মাঝে নতুন আতঙ্ক হয়ে দাঁড়িয়েছে গাড়ির চাকা বিস্ফোরণ। আচমকাই চাক্কা বিস্ফোরণে আহত হচ্ছেন অনেকেই। এছাড়া তীব্র শব্দ কারণে কানের পর্দা ফাটার উপক্রম হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এদিকে তীব্র শব্দ দূষণের কারণে পৌরশহরে বাসিন্দাদের মাঝে বেড়েছে রক্তচাপ, মাথাব্যথা, বদহজম, অনিদ্রা সহ শব্দ দূষণ জনিত নানা রোগবালাই।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার তানজিরুল ইসলাম রায়হান ডেইলি বাংলাদেশকে জানায়, দুর্গাপুরে শব্দ দূষণের মাত্রা অনেকাংশেই বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিদিনই রোগীরা হাসপাতালে শব্দ দূষণ জনিত নানা রোগ নিয়ে আসছেন। আচমকা তীব্র শব্দ একজন সুস্থ মানুষের অনেক আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আর অসুস্থ বা বয়স্কদের ক্ষেত্রে মারাত্মক প্রভাব বিস্তার করে। বিশেষ করে শিশুদের মাঝে তীব্র শব্দ দূষণের কারণে বুদ্ধিমত্তার বিকাশ ব্যাহত সহ স্নায়ুর মারাত্মক ক্ষতি সাধিত হয়। প্রতিনিয়তই এই শব্দ দূষণের ফলে কানের টিস্যুগুলো আস্তে আস্তে বিকল হয়ে পড়ে।

দুর্গাপুর থানার ওসি শাহ নুর এ আলম ডেইলি বাংলাদেশকে জানান, বিকেলে বালু বোঝাই একটি গাড়ির চাকা ফাটায় স্থানীয় ২/১ জন আহত হয়। এ ঘটনায় স্থানীয়রা ট্রাকটিকে আটকে রাখে। পরে পুলিশ গিয়ে চাকরি কে জব্দ করে থানায় নিয়ে আসে ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা খানম ডেইলি বাংলাদেশকে জানান, দু’একদিনের মধ্যেই সোমেশ্বরী নদীর পাড়ে দিয়ে বালুবাহী ট্রাক্ট চলাচলে জন্য ডাইভারশন চালু হবে। ডাইভারশন চালু হলে জনগণের দুর্ভোগ অনেকটাই কমে আসবে। এছাড়াও এই কয়েকদিন যাতে ভেজা বালু পরিবহন বন্ধ থাকে তার জন্য ঘাটগুলোতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি কোন গাড়িতে যেনো ওভারলোডিং বালু তুলতে না পারে সেই বিষয়টিও নজরে রয়েছে।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম