নিজে মাস্ক না পরে অন্যকে শাসালেন নারী চিকিৎসক

ঢাকা, বুধবার   ২০ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৬ ১৪২৭,   ০৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

নিজে মাস্ক না পরে অন্যকে শাসালেন নারী চিকিৎসক

নেত্রকোনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:৪২ ৫ ডিসেম্বর ২০২০   আপডেট: ২১:৫২ ৫ ডিসেম্বর ২০২০

মাস্ক না পরেই কথা কাটাকাটি করছেন নারী চিকিৎসক

মাস্ক না পরেই কথা কাটাকাটি করছেন নারী চিকিৎসক

স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই দেখছেন রোগী। পরছেন না মাস্কও। তবে রোগী ও রোগীর স্বজনরা মাস্ক না পরলে করছেন খারাপ ব্যবহার। কোনো কোনো রোগীর স্বজনকে গলাধাক্কা দিয়েও বের করে দেন। এমনই অভিযোগ ওঠে নেত্রকোনার মদন হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. কাজী বুশরা আমীনের বিরুদ্ধে। কিছুদিন আগে তিনি নিজেই করোনায় আক্রান্ত হন।

শনিবার বিকেলে জরুরি বিভাগে সেবা নিতে আসেন এক রোগী। সেই রোগীর সঙ্গে আসা আয়েশা আক্তার নামে একজন মাস্ক না পরায় গলাধাক্কা দিয়ে হাসপাতাল থেকে বের করে দেয়া হয়।

হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, ডা. কাজী বুশরা আমীন নিজে মাস্ক না পরে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের বাইরে রোগীর স্বজনদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি করছেন। এরপরই আবার মাস্ক না পরে রোগী দেখছেন।

রোগীর স্বজন আয়েশা আক্তার বলেন, আমি মাস্ক না পরে জরুরি বিভাগে গেলে কাজী বুশরা আমীন আমাকে বের হয়ে যেতে বলেন। আপনি তো নিজেই মাস্ক পরেননি- এ কথা বললে আমাকে গলাধাক্কা দিয়ে বের করে দেন।

রোগী হান্নান মিয়া বলেন, আমাদের সামনেই ওই ডাক্তার আয়েশা আক্তারকে ধাক্কা দিয়ে বের করে দেন। তিনি আমাদের সঙ্গেও খারাপ ব্যবহার করেন।

ডা. বুশরা আমীন বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমি আর কথা বলতে চাই না। রোগীর কাছ থেকে জেনে নেন। রোগীর স্বজনদের ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি বাইরে যাওয়ার সময় হয়তো ধাক্কা লাগতে পারে।

হাসপাতালের আরএমও সাইম হাসান রিয়াদ বলেন, ডা. কাজী বুশরা আমীন মাস্ক না পরে রোগী দেখে থাকলে এটা তার ভুল হয়েছে। ধাক্কার বিষয়ে অভিযোগ পেলে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে স্বাস্থ্য প্রশাসকের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাসানুল বলেন, বিষয়টি আরএমও এর মাধ্যমে জেনেছি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর/জেএইচ