৩ ঘণ্টা ২০ মিনিটে বাংলা চ্যানেল পাড়ি দিলেন কিশোর রাব্বি  

ঢাকা, শুক্রবার   ২২ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৮ ১৪২৭,   ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

৩ ঘণ্টা ২০ মিনিটে বাংলা চ্যানেল পাড়ি দিলেন কিশোর রাব্বি  

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি    ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:৫২ ৩০ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ২৩:১৭ ৩০ নভেম্বর ২০২০

কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন পর্যন্ত ১৬ কিলোমিটারের ‘বাংলা চ্যানেল’ পাড়ি দিলেন বগুড়ার রাব্বি রহমান

কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন পর্যন্ত ১৬ কিলোমিটারের ‘বাংলা চ্যানেল’ পাড়ি দিলেন বগুড়ার রাব্বি রহমান

কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন পর্যন্ত ১৬ দশমিক ১ কিলোমিটারের ‘বাংলা চ্যানেল’ পাড়ি দিলেন বগুড়ার রাব্বি রহমান নামে এক কিশোর।

সোমবার সকালে তিনি এই চ্যানেল পাড়ি দেন। সোমবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে দুই নারীসহ ৪৩জন সাঁতারু শাহপরীর দ্বীপের জেটিঘাট থেকে সাঁতার শুরু করেন। ১৬ দশমিক ১ কিলোমিটার দূরের সেন্টমার্টিন দ্বীপে পৌঁছাতে রাব্বি রহমানের সময় লাগে ৩ ঘণ্টা ২০মিনিট। প্রথমবারের মতো বাংলা চ্যানেল পাড়ি দিলেন রাব্বি  রহমান। দ্বিতীয় সাইফুল ইসলাম রাসেলের সময় লাগে ৩ ঘণ্টা ৩১ মিনিট ও তৃতীয় সুজা মোল্লা সময় লাগে ৩ ঘণ্টা ৩৫মিনিট। 

এবারের ৪৩ সাঁতারুর মধ্যে একজন বিদেশি, দুইজন নারী ও দুইজন পুলিশ কর্মকর্তাও আছেন। 

১৫তম বাংলা চ্যানেল সাঁতারের আয়োজক ষড়জ অ্যাডভেঞ্চার ও এক্সট্রিম বাংলা। গত মার্চে এই সাঁতার আয়োজনের কথা ছিল। করোনা পরিস্থিতিতে তখন সেটি স্থগিত হয়ে যায়।

রাব্বি সেন্টমার্টিনে পৌঁছানোর পর তাকে শুভেচ্ছা জানান উপস্থিত পর্যটক ও স্থানীয় লোকজন। 

সেন্টমার্টিন সার্ভিস বোট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছৈয়দ আলম  বলেন, বাংলা চ্যানেলের মাধ্যমে এ দেশের আরেকটি পরিচিতি লাভ করেছে। বিদেশি সাঁতারুরাও এখন এই চ্যানেলে সাঁতার দিচ্ছেন।

বাংলা চ্যানেল পাড়ি দেয়ার পর রাব্বি বলেন, প্রথমবারের মতো বাংলা চ্যানেল পাড়ি দিয়ে সফলভাবে সাঁতার শেষ করতে পেরে আমি খুবই খুশি। সাঁতার একটি মৌলিক দক্ষতা যা প্রত্যেকের শেখার অধিকার রয়েছে।

ষড়জ অ্যাডভেঞ্চারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা লিপটন সরকার জানান, চ্যানেল সাঁতারের আন্তর্জাতিক নিয়ম মেনে এই আয়োজন করা হচ্ছে। সাঁতারুরা ফ্রি হ্যান্ড সুইমিং করবেন। নিরাপত্তার জন্য প্রত্যেক সাঁতারুর সঙ্গে একটি করে উদ্ধারকারী নৌকা থাকবে। এছাড়া কোস্ট গার্ডের সার্ভিস বোট, জরুরি নৌকা ও ডুবুরিরা থাকবেন।

তিনি আরো জানান, এবারের বাংলা চ্যানেল সাঁতারে বেশ কিছু রেকর্ড হতে পারে। ৬৮ বছর বয়সী সাঁতারু ক্ষিতিন্দ্র চন্দ্র বৈষ্য এই সাঁতারে অংশ নিচ্ছেন। সফল হলে তিনিই হবেন বাংলা চ্যানেল পাড়ি দেয়া সবচেয়ে বয়স্ক সাঁতারু। এখন পর্যন্ত এ রেকর্ডের অধিকারী ঢাকার মিজানুর রহমান। তিনি ২০১৯ সালে ৬৭ বছর বয়সে এই চ্যানেল পাড়ি দিয়েছিলেন। এবার তিনি অংশ নিচ্ছেন না।

২০০৬ সাল থেকে প্রতিবছর এই আয়োজনটি হয়ে আসছে। এবারের ১৫তম আসরে ৪৩ সাঁতারুর মধ্যে ১ জন বিদেশি, ২ জন নারী ও ২ জন পুলিশ কর্মকর্তাও আছেন। গত বছর ৩১ সাঁতারু বাংলা চ্যানেল পাড়ি দেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ