চটপটি খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে নাতিকে দাদার ধর্ষণ

ঢাকা, বুধবার   ২০ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৭ ১৪২৭,   ০৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

চটপটি খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে নাতিকে দাদার ধর্ষণ

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩৩ ১৫ নভেম্বর ২০২০  

রোববার বিকেলে ধর্ষক মজিবরকে উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের পোটান গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

রোববার বিকেলে ধর্ষক মজিবরকে উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের পোটান গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

গাজীপুরের কালীগঞ্জে চটপটি খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে ১০ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী দাদার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় নির্যাতিত শিশুর বাবার মামলার প্রেক্ষিতে রোববার বিকেলে ধর্ষক মজিবরকে উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের পোটান গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

দুই স্ত্রী এবং ৫ সন্তানের জনক মজিবর রহমান ওই গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে। স্থানীয় ইটাখোলা বাইপাস সড়কের পাশে নোয়াপাড়া এলাকায় তার চটপটির দোকান রয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি এ কে এম মিজানুল হক বলেন, স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ওই ছাত্রী শনিবার বিকেলে বাড়ির পাশের দাদা মজিবুর রহমানের দোকানে চটপটি খেতে যায়। মজিবর শিশুটিকে দীর্ঘসময় দোকানে বসিয়ে রাখেন। সন্ধ্যা হলে দোকান বন্ধ করে ১০ বছরের নাতনিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন এবং রাতে শিশুটিকে নিয়ে দোকানেই রাত যাপন করেন। বাড়ির লোকজন শিশুটিকে খোঁজাখুঁজি এবং সন্ধান চেয়ে এলাকায় মাকিং করে। রবিবার সকালে মজিবরের চটপটির দোকানের পাশে মেয়েটিকে দেখতে পেয়ে লোকজন তাকে বাড়িতে নিয়ে যায়। বাড়ি গিয়ে মেয়েটি পরিবারের কাছে ঘটনা জানায়।

ওসি আরো জানান, মজিবর শিশুটিকে আটকে রেখে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। মামলা থেকে রক্ষা পেতে শিশুটির পরিবারের কাছে ক্ষমা চেয়ে ধর্ষণের ক্ষতিপূরণ হিসেবে তিনি শিশুটিকে ২ কাঠা জমি লিখে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়েছিলেন। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শিশুটিকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপতালে পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ