চাঁদপুরে ৩০ চিকিৎসকসহ শীর্ষ কর্মকর্তাদের হুমকি

ঢাকা, বুধবার   ২০ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৭ ১৪২৭,   ০৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

চাঁদপুরে ৩০ চিকিৎসকসহ শীর্ষ কর্মকর্তাদের হুমকি

চাঁদপুর প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:২০ ১২ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ২০:৪৪ ১২ নভেম্বর ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সর্বহারা পার্টির পরিচয়ে মোবাইলে টাকা দাবি করে চাঁদপুরে কর্মরত সরকারি চিকিৎসকসহ শীর্ষ কর্মকর্তাদের হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এনিয়ে  আতঙ্ক বিরাজ করছে চাঁদপুর শহর ও বিভিন্ন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত চিকিৎসকদের মাঝে।

জানা যায়, গত ৫ দিনে চাঁদপুরের হাইমচর, হাজীগঞ্জ, শাহরাস্তি, মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণ, কচুয়া ও ফরিদগঞ্জ উপজেলায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাসহ অন্তত ৩০ জন চিকিৎসককে সর্বহারা পার্টির সেকেন্ড ইন কমান্ড পরিচয় দিয়ে মোবাইল ফোনে চাঁদা দাবি করে এবং চাঁদা না দেয়া হলে চিকিৎসকদেরকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়। ফলে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন এসব চিকিৎসক ও তাদের পরিবারের সদস্যরা।

চাঁদপুরের সিভিল সার্জন সূত্রে জানা যায়, হাইমচর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত ইউএইচএফপিও ডা. মামুন রায়হান রককে গত ৭ নভেম্বর দুপুরে একটি নম্বর থেকে বেশ কয়েকবার ফোন করে নিজেকে সর্বহারা পার্টির সেকেন্ড ইন কমান্ড পরিচয় দিয়ে চাঁদা দাবি করা হয়।

একই হাসপাতালের ডা. আব্দুল্লাহ আল মামুন, ডা. রাশেদ মোহাম্মদ, ডা. অদিতি বিশ্বাস, ডা. নাজমা আহমেদকেও একই নম্বর থেকে ফোন দিয়ে সর্বহারা পার্টির পরিচয় দিয়ে টাকা দাবি করে। টাকা না দিলে তাদেরকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়। 

ওই ঘটনায় গত ৯ নভেম্বর হাইমচর থানায় ভুক্তভোগীরা একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

এ দিকে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শোয়েব আহমেদ চিশতি বলেন, গত ৫ নভেম্বর আমাকেও ফোন দিয়ে সর্বহারা পার্টির পরিচয়ে চাঁদা দাবি করে। 

এ সময় তারা বলে, তাদের সর্বহারা পার্টির অনেক লোকজন আহত হয়েছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য অনেক টাকা প্রয়োজন, তাই তাদেরকে চাঁদা দিতে হবে।

তিনি বলেন, পরবর্তীতে গত ৭ নভেম্বর শনিবার আবারো অফিসে ফোন করে। এ সময় আরো অন্ততপক্ষে ১০জন সহকর্মীর কাছে চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দিলে তাদেরকেও হত্যার হুমকি দেয়া হয়। এই ঘটনায় গত শনিবার হাজীগঞ্জ থানায় দুটি সাধারণ ডায়রি করা হয়।

চাঁদপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. শাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, গত কয়েকদিনে সর্বহারা পার্টির পরিচয় দিয়ে মোবাইল ফোনে হাজীগঞ্জ, হাইমচর, শাহরাস্তি, মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণ, ফরিদগঞ্জ ও কচুয়া উপজেলার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে চাঁদা চেয়ে হুমকি দেয়া হয়েছে। এসব ঘটনায় অনেক চিকিৎসক ঘাবড়ে গেছেন। অনেকেই বদলির জন্য  আবেদনও করেছেন।

তিনি বলেন, বিষয়টি এরইমধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধিদফতরসহ চাঁদপুরের এসপি মো. মাহবুবুর রহমানকে লিখিতভাবে জানিয়েছি। পুলিশ নিরাপত্তার বিষয়ে আশ্বস্ত করেছেন। এই ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

চাঁদপুরের অ্যাডিশনাল এসপি স্নিগ্ধা সরকার বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করছি। পাশাপাশি চিকিৎসকদের নিরাপত্তা আরো জোরদার করা হয়েছে। চিকিৎসকদের অফিস ও বাসবভনে পুলিশের টহল আরো বৃদ্ধি করা হয়েছে। এছাড়াও  হুমকিদাতাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে পুলিশ কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে