‘আমি ফুফুর পা চেপে ধরি আর হুমা বালিশ চাপা দেয়’

ঢাকা, শুক্রবার   ২৭ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৩ ১৪২৭,   ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

‘আমি ফুফুর পা চেপে ধরি আর হুমা বালিশ চাপা দেয়’

নোয়াখালী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৪০ ২৯ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১২:৫৭ ২৯ অক্টোবর ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে এক নারীকে হত্যা করে ৫ টুকরো করা মামলার আসামি আবুল কালাম সুমন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। বুধবার নোয়াখালীর সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতের বিচারক এইচএম মোসলেউদ্দীন মিজানের আদালতে ১৬৪ ধারায় এ জবানবন্দি নেয়া হয়।

সুমন জানায়, নুরজাহান তার ফুফু। কিছু পাওনা টাকার জন্য নুরজাহান তার বাবাকে সবসময় গালিগালাজ করতো। এ কারণেই সে তার ফুফাতো ভাই হুমায়ুন কবির হুমাকে নিয়ে নুরজাহানকে হত্যা করে।

সুমন আরো জানায়, সে ঘরের ভিতর নুরজাহানের পা চেপে ধরে আর হুমায়ুন কবির হুমা বালিশ চাপা দিয়ে তাকে হত্যা করে। পরে কসাই নুরুল ইসলাম এসে লাশ টুকরো করে। তারা লাশের টুকরোগুলো ধান ক্ষেতে ফেলে দেয়।

তদন্তকারী কর্মকর্তা নোয়াখালী ডিবির পরিদর্শক জাকির হোসেন জানান, এ নিয়ে নুরজাহান হত্যা মামলায় ৫ আসামি দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে। ২৬ অক্টোবর কালাম সুমনকে তিন দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস