দুই দফা রিমান্ড শেষে কারাগারে কনস্টেবল টিটু

ঢাকা, সোমবার   ৩০ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৭ ১৪২৭,   ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

সিলেটে রায়হান হত্যা

দুই দফা রিমান্ড শেষে কারাগারে কনস্টেবল টিটু

সিলেট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩৫ ২৮ অক্টোবর ২০২০  

রিমান্ড শেষে কারাগারে নেয়া হয় সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাসকে

রিমান্ড শেষে কারাগারে নেয়া হয় সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাসকে

সিলেটের বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে রায়হান উদ্দিন আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাসকে দুই দফা রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

বুধবার দুপুরে ৮ দিনের রিমান্ড শেষে তাকে সিলেটের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াদুর রহমানের আদালতে হাজির করে পিবিআই।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই পরিদর্শক মুহিদুল ইসলাম।

তিনি জানান, প্রথম দফায় ৫ দিনের রিমান্ড শেষে গত রোববার আদালতে হাজির করা হয় কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাসকে। ওই সময় আরো ৫ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। বুধবার দুপুরে দ্বিতীয় দফা রিমান্ড শেষে তাকে একই আদালতে তোলা হলে বিচারক কনস্টেবল টিটুকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গত ১১ অক্টোবর ভোরে সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে নিহত হন নগরীর আখালিয়ার নেহারিপাড়ার রফিকুল ইসলামের ছেলে রায়হান উদ্দিন আহমেদ। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। পরে বন্দরবাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূয়ইয়া, কনস্টেবল হারুনুর রশিদ, তৌহিদ মিয়া ও টিটু চন্দ্র দাসকে সাময়িক বরখাস্ত ও এএসআই আশেক এলাহী, এএসআই কুতুব আলী ও কনস্টেবল সজিব হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়।

মামলার প্রধান অভিযুক্ত এসআই আকবর পলাতক রয়েছেন। তাকে পালাতে সহযোগিতা করায় পরবর্তীতে বন্দরবাজার ফাঁড়ির এসআই হাসানকেও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। পরবর্তীতে মামলাটির তদন্তভার পিবিআইকে দেয়া হয়। এরপর বরখাস্ত হওয়া কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাস ও হারুনুর রশিদকে গ্রেফতার দেখায় পিবিআই।

এছাড়া রায়হানের মৃত্যুর ঘটনায় শেখ সাইদুর রহমান নামে আরেক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই। ১০ অক্টোবর রাতে সাইদুরের অভিযোগেই রায়হানকে ধরে নিয়ে যান এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়া।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর