নরসিংদীতে গুঁড়িয়ে দেয়া হলো ১২০০ স্থাপনা

ঢাকা, বুধবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৮ ১৪২৭,   ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২

নরসিংদীতে গুঁড়িয়ে দেয়া হলো ১২০০ স্থাপনা

নর‌সিংদী প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৪০ ২৮ অক্টোবর ২০২০  

নরসিংদীতে রেলওয়ের জমি দখল করে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে বুধবার সকাল থেকে অভিযান শুরু করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ

নরসিংদীতে রেলওয়ের জমি দখল করে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে বুধবার সকাল থেকে অভিযান শুরু করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ

নরসিংদীতে রেলওয়ের জমি দখল করে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে বুধবার সকাল থেকে অভিযান শুরু করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। সকাল ১০টা থেকে এ অভিযান শুরু হয়। এ বছরের শুরু থেকে রেলের জমি উদ্ধার অভিযান শুরু করে রেল কর্তৃপক্ষ। করোনার কারণে এতদিন অভিযান বন্ধ ছিল। 

নরসিংদী রেলস্টেশনসংলগ্ন পৌর শহরে রেললাইনের দুই পাশে প্রায় দুই হাজার অবৈধ স্থাপনার মধ্যে আজ ১২০০ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ঢাকা বিভাগীয় ভূমিবিষয়ক কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম।

দিনব্যাপী এ উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেন বাংলাদেশ রেল মন্ত্রণালয়ের ঢাকা বিভাগীয় রেলওয়ে ম্যানেজার এ এম সালাহ্ উদ্দিন, কমান্ডেন্ট আর এম ডি মো. জহিরুল ইসলাম, বিভাগীয় ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ার মো. আরিফুল ইসলাম, নরসিংদী জেলা প্রশাসনের পক্ষে অংশ নেন নির্বাহী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান কাউছারসহ রেলওয়ে ও নরসিংদীর আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস‌্যরা। 

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ঢাকা বিভাগীয় ভূমিবিষয়ক কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম ব‌লেন, এ বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে টেন্ডারের মাধ্যমে সব‌কিছু মাস্টার প্ল্যানের আওতায় আনা হবে।

এ দিকে বিগত অভিযানে সাদ্দাম মার্কেট, পলাশ ঘোড়াশাল ফেরিঘাট মার্কেট রেললাইনের পাশে প্রায় সাড়ে ৪ শতাধিক স্থাপনা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়া হলেও পুনরায় এসব জায়গা দখল ক‌রে স্থাপনা নির্মাণ করে প্রভাবশালীরা। এ বিষয়ে জানতে  চাইলে নজরুল ইসলাম জানান, রেলের জমিতে অবৈধ স্থাপনা উদ্ধার প্রক্রিয়া চলমান। কেউ যদি আইন অমান্য করে স্থাপনা নির্মাণ করে তাকেও আইনের আওতায় আনা হবে। 

স্থানীয় প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সার্বিক সহযোগিতায় এ উচ্ছেদ অভিযান কোনো প্রকার বাধা ও অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে বলে জানান বাংলাদেশ রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজার এ এম সালাহ উদ্দিন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ