সরকারি গাড়ি ছাড়া তিনি চলতে পারেন না!

ঢাকা, শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৭,   ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

সরকারি গাড়ি ছাড়া তিনি চলতে পারেন না!

শেরপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪১ ২৮ অক্টোবর ২০২০  

মোদাব্বের হোসেন-ফাইল ফটো

মোদাব্বের হোসেন-ফাইল ফটো

মোদাব্বের হোসেন। তিনি শেরপুর জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালকের দায়িত্বে আছেন। অভিযোগ উঠেছে ওই কর্মকর্তা সরকারি নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে সরকারি গাড়ি তার ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করছেন। বর্তমানে ছুটিতে থাকা এ কর্মকর্তা তার রংপুরের নিজ বাড়িতে যাওয়ার সময় ওই গাড়িটি নিয়ে গেছেন। নিয়ম অনুযায়ী তার এই ছুটিকালীন সময়ে ওই পদে সহকারী পরিচালক (সিসি) কে দায়িত্ব দেয়ার কথা থাকলেও উপজেলার একজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব প্রদান করে গেছেন তিনি। এছাড়া  জেলার পাঁচ উপজেলায় সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের মাসিক সমন্বয়সভাগুলোতে নিয়ম বহির্ভূতভাবে ব্যানারে তার ছবি সংযুক্ত করা হচ্ছে।  

একাধিক সূত্রে জানা যায়, শেরপুর জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মোদাব্বের হোসেন ওই পদে যোগদানের পর থেকে একের পর এক নাটকীয় ঘটনার জন্ম দিয়ে যাচ্ছেন। গত ১ অক্টোবর দায়িত্ব গ্রহণের পরপরই তিনি পরিবার এবং বন্ধু বান্ধব নিয়ে সরকারি গাড়িতে নেত্রকোনা ও কিশোরগঞ্জ  জেলায় বেড়াতে যান। বর্তমানে পারিবারিক কারণে তার গ্রামের বাড়ি রংপুরে ছুটি কাটাতে গেছেন। সঙ্গে নিয়ে গেছেন  অফিসের জন্য বরাদ্দ সরকারি জিপ গাড়িটি। এ গাড়িটি  জেলার বাইরে নেয়ার সুযোগ না থাকলেও তিনি তা পরোয়া করছেন না। আরেকটি অবাক করা কাণ্ড ঘটিয়েছেন তিনি, তার ছুটিকালীন সময়ে তার দায়িত্বটি জেলায় কর্মরত সহকারী পরিচালককে (সিসি) না দিয়ে উপজেলার একজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব প্রদান করেছেন। এ নিয়ে খোদ সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে বইছে সমালোচনার ঝড়। 

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে সহকারী পরিচালক (সিসি) ডা. আসাদুল ইসলাম বলেন, আপনারা (গণমাধ্যমকর্মীরা) সবই জানেন। এ নিয়ে কোনো কিছু বলতে চাচ্ছি না। দুই দিনের ছুটিতে রংপুরে যাওয়ার সময় সরকারি গাড়িটি নিয়ে গেছেন বিষয়টি স্বীকার করে ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মোদাব্বের হোসেন বলেন, তিনি সেখানে সরকারি কাজেই গেছেন। আর এ বিষয়টি ময়মনসিংহ বিভাগীয় পরিচালক অবহিত আছেন বলে দাবি করেন। 

তিনি  বলেন, তার জন্য ১৮০ লিটার তেল বরাদ্দ আছে, এর বাইরে অতিরিক্ত তেল তিনি খরচ করেন না। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,  প্রতিষ্ঠানের মাসিক সমন্বয়সভাগুলোতে নিয়ম বহির্ভূতভাবে ব্যানারে তার ছবি সংযুক্ত করছেন তার অধীনস্থরা। বিষয়টি ঠিক না, তাই সবাইকে এ কাজ করতে নিষেধ করা হয়েছে। অন্যদিকে তিনি ছুটিতে যাওয়ার সময় সহকারী পরিচালক (সিসি) কর্মস্থলে ছিলেন না তাই দায়িত্ব অন্যজনকে দেয়া হয়েছে। এছাড়া তিনি ইচ্ছা করলে তার অনুপস্থিতিতে ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালকের দায়িত্ব যে কাউকে দিতে পারেন। 

ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া সরকারি গাড়ি জেলার বাইরে নেয়ার নিয়ম নেই জানিয়ে ময়মনসিংহ বিভাগীয় পরিচালক আবদুল আওয়াল বলেন, ঢাকা বা অন্য কোথাও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীক কোনো কাজ থাকলে তা কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে যেতে হবে। 

শেরপুরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মোদাব্বের হোসেন ছুটি নিয়ে সরকারি গাড়িসহ বর্তমানে রংপুরে আছেন বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত আছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে অবগত নন বলে জানান।  

বিভাগীয় পরিচালক নিজেই শ্বাসকষ্ট জনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে এখন তিন মাসের ছুটিতে আছেন জানিয়ে তিনি আরো বলেন, ওই কর্মকর্তা সম্পর্কে সব তথ্য তার কাছে এখন নেই। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ