৩২ বছর ধরে স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধ, রোগ নিরাময়ে কবিরাজের দ্বারস্থ

ঢাকা, বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১১ ১৪২৭,   ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

৩২ বছর ধরে স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধ, রোগ নিরাময়ে কবিরাজের দ্বারস্থ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:১০ ২৭ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ০০:১২ ২৭ অক্টোবর ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ কেন্দ্রটি ১৯৮৮ সালের বন্যার পর থেকে বন্ধ রয়েছে।

ফলে চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন হাওরবেষ্টিত প্রায় ৪০ হাজার মানুষ। বেশিরভাগ মানুষ রোগবালাই নিরাময়ে কবিরাজের দ্বারস্থ হন।

জানা গেছে, ১৯৮৮ সালের বন্যায় উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউপির স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ কেন্দ্র অবকাঠামো ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর থেকে ইউপির পাঠাবুকা গ্রামে অবস্থিত এ কেন্দ্রটি বন্ধ হয়ে যায়। এখনও এটি বন্ধ রয়েছে।

টাঙ্গুয়াসহ কয়েকটি হাওরবেষ্টিত এ ইউপির ৫০টি গ্রামে ৪০ হাজার মানুষের বসবাস। গ্রামগুলোর চারপাশ হাওরের পানিতে নিমজ্জিত থাকে।

তাহিরপুর উপজেলা সদর থেকে ইউপির নিকটবর্তী গ্রামের দূরত্ব প্রায় ১০ কিলোমিটার। চিকিৎসার প্রয়োজনে ইউনিয়নবাসীকে তাহিরপুর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স বা নেত্রকোনার কলমাকান্দা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যেতে হয়। ফলে নানা রকমের দুর্ভোগে পড়তে হয় তাদের।

দক্ষিণ শ্রীপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মাসুক বলেন, ইউপি ভবনের ২০ কিলোমিটারের মধ্যে কোনো সরকারি বা বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান নেই। ইউপির অধিকাংশ মানুষ অসচেতন ও আর্থিকভাবে অসচ্ছল। 

সুনামগঞ্জ জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপপরিচালক মোজাম্মেল হক বলেন, পাঠাবুকা পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রটি চালু করার জন্য সুনামগঞ্জ-১ আসনের এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। আশা করি দ্রুত সময়ের মধ্যে টেন্ডার হয়ে যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে