কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিধবাকে বিবস্ত্র করে নির্মম নির্যাতন

ঢাকা, বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১১ ১৪২৭,   ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিধবাকে বিবস্ত্র করে নির্মম নির্যাতন

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:০৪ ২৬ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ২১:২৬ ২৬ অক্টোবর ২০২০

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নির্যাতনের শিকার বিধবা নারী

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নির্যাতনের শিকার বিধবা নারী

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার ভাদুর গ্রামে কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় প্রতিপক্ষের লোকজন বিধবা নারীকে বিবস্ত্র করে নির্মম নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে সোমবার সকালে ওই নারী বাদী হয়ে চারজনকে অভিযুক্ত করে রামগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভাদুর গ্রামের মৃত এসহাক মিয়ার স্ত্রীকে দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে স্থানীয় বখাটে হারুনুর রশিদ ও তছলিম হোসেন কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। এতে রাজি না হওয়ায় রোববার সন্ধ্যায় ওই নারীকে বসতঘরে সন্তানের সামনে বিবস্ত্রের পর নির্যাতন করে অভিযুক্তরা।

আরো পড়ুন: হাজী সেলিমের ছেলের বারান্দায় ‘সোনার’ দূরবীণ, নজরে পুরো এলাকা

ভুক্তভোগীর মেয়ে মীম আক্তার জানান, ঘরে ঢুকে হারুনুর রশিদ ও তছলিম হোসেন আমার মাকে টেনে-হিঁচড়ে বিবস্ত্র করে কাঠের টুকরো দিয়ে নির্মমভাবে পেটাতে থাকে। এতে মা অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পড়ে লুটিয়ে পড়লে বাড়ির অন্য লোকজন তাকে উদ্ধার করে রামগঞ্জ সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন।

অভিযুক্ত হারুনুর রশিদ বলেন, আমার স্ত্রী ফাতেমা ও ছেলে প্রিয়াস হোসেন ওই নারীকে মারধর করেছে। আমি মারধরের সময় ঘটনাস্থলে ছিলাম না।

আরো পড়ুন: স্বামীর ‘বর্বর’ যৌনসঙ্গমে লাশ হলো কিশোরী স্ত্রী

স্থানীয় মেম্বার আব্দুল আজিজ বলেন, বিধবা নারীর সঙ্গে হারুন গংদের দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিরোধ চলে আসছিলো। উক্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে বিধবাকে মারধর করে। স্বজনরা মুমূর্ষু অবস্থায় বিধবাকে আমার অফিসের সামনে আনলে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করতে বলি।

রামগঞ্জ থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, বিধাব নারীর দায়ের করা অভিযোগটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম