রাতের আঁধারে ক্ষেতের গাছ কেটে সাবাড়

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৪ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১০ ১৪২৭,   ০৭ রবিউস সানি ১৪৪২

রাতের আঁধারে ক্ষেতের গাছ কেটে সাবাড়

আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:০১ ২৬ অক্টোবর ২০২০  

রাতের আঁধারে ক্ষেতের গাছ কেটে সাবাড়

রাতের আঁধারে ক্ষেতের গাছ কেটে সাবাড়

পরিবারে আর্থিক স্বচ্ছলতা আনতে ধার দেনা করে দেশীয় পদ্ধতিতে লাউ আবাদ করেছেন কৃষক মো. আব্দুল রহমান। বাড়ি সংলগ্ন প্রায় ২২ শতক জায়গায় প্রায় একশ’টি লাউ গাছের চারা লাগান তিনি। এরমধ্যে গাছগুলোতে ফলন আসতে শুরু করেছে।

অনেক স্বপ্ন নিয়ে প্রতিনিয়ত লাউ গাছের পরিচর্যা করছেন তিনি। বুক ভরা আশা নিয়ে বসে আছেন আর মাত্র ৭-৮ দিনের মধ্যে লাউ বিক্রি করবেন। এরইমধ্যে তার সব কিছু তছনছ হয়ে গেল। রাতের আঁধারে দুর্বৃত্তরা তার সব লাউ গাছ কেটে ফেলেছে। 

রোববার গভীর রাতে উপজেলার মোগড়া ইউপির টানুয়াপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এতে ওই কৃষকের প্রায় দেড় লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়। কৃষক আব্দুর রহমান ওই গ্রামের আলী আহমদের ছেলে।

জানা যায়, টানুয়াপাড়া গ্রামে প্রায় ২২ শতক জায়গায় প্রায় একশ’টি লাউ গাছের চারা লাগিয়েছেন আব্দুর রহমান নামে এক দরিদ্র কৃষক। এতে তার খরচ হয় প্রায় ৫০ হাজার টাকা। এরমধ্যে ওইসব গাছে ফলন আসতে শুরু করেছে। রাতের আঁধারে কে বা কারা তার সব লাউ গাছগুলো কেটে দেয়।

আব্দুর রহমান জানান, রোববার বিকেলে পরিবারের এক সদস্য হঠাৎ অসুস্থ হলে তাকে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে সারারাত তার থাকতে হয়। সোমবার সকালে খবর পান তার লাউ গাছ সব কেটে ফেলা হয়েছে। খবর পেয়ে সেখানে গিয়ে তিনি দেখতে পান লাউ গাছগুলো সব কাটা পড়ে আছে। অনেক ধার-দেনা করে লাউ আবাদ করেছিলাম।

তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় প্রায় দেড় লাখ টাকার উপর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আমি নিঃস্ব হয়ে গেছি। এখন কিভাবে ধার-দেনা পরিশোধ করব ভেবে পাচ্ছি না। দু’চোখে এখন অন্ধকার দেখছি।

উপজেলা উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো. বিল্লাল হোসেন বলেন, এ ঘটনায় খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে কৃষককে সার্বিক সহায়তা দেয়া হবে।

আখাউড়া থানার ওসি রসুল আহমদ নিজামী বলেন, এ ঘটনায় এখন পযর্ন্ত থানায় কেউ অভিযোগ দায়ের করেনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম