সেন্টমার্টিন থেকে ফিরলেন পর্যটকরা, মনে আক্ষেপ

ঢাকা, বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১১ ১৪২৭,   ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

সেন্টমার্টিন থেকে ফিরলেন পর্যটকরা, মনে আক্ষেপ

ফরহাদ আমিন, টেকনাফ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৩৮ ২৫ অক্টোবর ২০২০  

সেন্টমার্টিন থেকে ফিরছে পর্যটকবাহী ট্রলার

সেন্টমার্টিন থেকে ফিরছে পর্যটকবাহী ট্রলার

বৈরী আবহাওয়ার কারণে জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকায় তিনদিন সেন্টমার্টিনে আটকে থাকা দুই শতাধিক পর্যটক অবশেষে টেকনাফে ফিরছেন। তবে তাদের মনে রয়ে গেছে আক্ষেপ। দুর্যোগপূর্ণ পরিবেশেও সেন্টমার্টিনের হোটেল-রিসোর্ট মালিকদের কাছ থেকে কোনো সহযোগিতা পাননি পর্যটকরা।

সেন্টমার্টিন থেকে টেকনাফে ফিরে নিজেদের কষ্টের কথা জানালেন তারা। রোববার দুপুরে পর্যটকবাহী তিনটি ট্রলার টেকনাফ পৌরসভার কায়ুকখালী ঘাটে পৌঁছায়।

সেন্টমার্টিন সার্ভিস বোট মালিক সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আলম বলেন, প্রশাসনের নির্দেশনা অনুযায়ী বৈরী আবহাওয়ার কারণে তিনদিন কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ ছিল। শনিবার রাত থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় রোববার সকালে পুনরায় পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে।

তিনি আরো জানান, সকাল ৭টায় কক্সবাজারের নুনিয়ারছড়া ঘাট থেকে সাড়ে পাঁচশ পর্যটক নিয়ে রওনা হয়ে দুপুর ১টায় সেন্টমার্টিন পৌঁছেছে কর্ণফুলী জাহাজ। এছাড়া সকালে তিনটি সার্ভিস ট্রলারে করে সেন্টমার্টিনে আটকা পড়া দুই শতাধিক পর্যটককে টেকনাফে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

সেন্টমার্টিন আটকে পড়া পর্যটক আব্দুল্লাহ আল হাবি

খুলনা থেকে সেন্টমার্টিন গিয়ে আটকে পড়েছিলেন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল্লাহ আল হাবি। তিনি বলেন, পাঁচ বন্ধু কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিন গিয়ে আটকা পড়ি। আমাদের প্ল্যান ছিল ২০ অক্টোবর সেন্টমার্টিন থেকে ব্যাক করবো। কিন্তু বৈরী আবহাওয়ার কারণে চারদিন অতিরিক্ত থাকতে হয়েছে। এই চারদিন আমরা তিনটি রিসোর্টে ছিলাম। কিন্তু সেখানে কোনো রিসোর্ট কিংবা খাবার হোটেলে ডিসকাউন্ট পাইনি। দুর্যোগকালীন কেউ আমাদের খোঁজ নিতে আসেনি।

তিনি আরো বলেন, আমাদের মতো বাকি পর্যটকরাও সেন্টমার্টিন গিয়ে অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছিলেন। প্রতিবার দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় সেন্টমার্টিনের মানুষ পর্যটকদের সাধ্যমতো সহযোগিতা করে। কিন্তু এবার কেন এ ধরনের ব্যবহার করা হলো- বুঝতে পারছি না। আনন্দ করতে গিয়ে কষ্ট নিয়ে ফিরলাম।

সেন্টমার্টিন ইউপি চেয়ারম্যান নূর আহমেদ বলেন, আটকে পড়া পর্যটকদের নিয়ে যেতে কক্সবাজার থেকে কর্ণফুলী এক্সপ্রেস জাহাজটি এসেছে। রোববার বিকেলেই জাহাজটি পর্যটকদের নিয়ে সেন্টমার্টিন ত্যাগ করবে। এছাড়া সকালে তিনটি ট্রলারে করে দুই শতাধিক পর্যটক ফিরে গেছেন।

তিনি আরো বলেন, রিসোর্ট-হোটেল মালিকরা পর্যটকদের প্রতি যে অসহযোগিতা করেছন তা কাম্য নয়। পর্যটকদের আতিথেয়তায় সেন্টমার্টিনের মানুষের সুনাম রয়েছে। এ কারণেই দেশ-বিদেশের লাখো মানুষ প্রতিবছর সেন্টমার্টিনে আসেন। আমরা এ সুনাম রক্ষার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর