রায়হানের মৃত্যু হয়েছে ভোঁতা অস্ত্রের আঘাতে

ঢাকা, শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৭,   ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পিবিআই-তে

রায়হানের মৃত্যু হয়েছে ভোঁতা অস্ত্রের আঘাতে

সিলেট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১৩ ২২ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৪:১২ ২৩ অক্টোবর ২০২০

সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে নিহত রায়হান উদ্দিন আহমেদ

সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে নিহত রায়হান উদ্দিন আহমেদ

ভোঁতা অস্ত্রের আঘাতে মৃত্যু হয়েছে সিলেটের আখালিয়া নেহারিপাড়ার রফিকুল ইসলামের ছেলে রায়হান উদ্দিন আহমেদের। এছাড়া মিলেছে অতিরিক্ত নির্যাতনের প্রমাণও। দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট অনুযায়ী এ তথ্য জানিয়েছে এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রায়হানের দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পিবিআই-এর কাছে হস্তান্তর হস্তান্তর শেষে ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. শামসুল ইসলাম জানান, প্রথম ময়নাতদন্তে ১১১টি আঘাতের চিহ্নসহ অন্যান্য বিষয় অপরিবর্তিত হিসেবে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। নতুুুন করে ভোঁতা অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

তিনি আরো বলা হয়, রায়হানের ডান হাতের কনিষ্ঠ আঙুল আর বাম হাতের অনামিকার নখ উপড়ানো ছিল। অসংখ্য আঘাতের কারণে হাইপোভলিউমিক শক ও নিউরোজেনিক শকে মস্তিষ্ক, হৃৎপিণ্ড, ফুসফুস, কিডনিসহ গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলো কর্মক্ষমতা হারানোর কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। তবে মৃত্যুর পূর্ণাঙ্গ কারণ ভিসেরা প্রতিবেদন পাওয়ার পর বলা যাবে বলে প্রাথমিক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

এর আগে, ১৫ অক্টোবর প্রথম ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, রায়হানের ওপর বর্বর নির্যাতন চালানো হয়েছে। তার শরীরে ১১১টি আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ১৪টি ছিল গুরুতর। তার দুটি নখ উপড়ে ফেলা হয়েছে। আর এমন নির্যাতন চালানো হয় তার মৃত্যুর ২ থেকে ৪ ঘণ্টা আগে। এছাড়া রায়হানের শরীরে চামড়ার নিচ থেকে প্রায় ২ লিটার রক্ত পাওয়া গেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর