নিজ সন্তানের মুখে বিষ ঢেলে দিল পিতা

ঢাকা, রোববার   ২৯ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৫ ১৪২৭,   ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

নিজ সন্তানের মুখে বিষ ঢেলে দিল পিতা

মেহেরপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:১১ ২১ অক্টোবর ২০২০  

আহত ওমর ফারুক গাংনী উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন

আহত ওমর ফারুক গাংনী উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন

মায়ের ওপর প্রতিশোধ নিতে শিশু ওমর ফারুকের মুখে বিষ ঢেলে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে পাষন্ড পিতা মুজিবুল। এ বিষয়ে অভিযোগ করেছেন শিশুটির মা সাবিনা ইয়াসমিন ও নানি জায়েদা বানু।

আহত ওমর ফারুক বর্তমানে গাংনী উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। সে আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন জরুরি বিভাগের চিকিৎসক বোধাধীপ্ত দাশ।

সাবিনা ইয়াসমিন জানান, আমার চার ছেলে-মেয়ের সংসার ছিলো। আমার স্বামী মজিবুল আমার ওপর কারণে অকারণে প্রায় নির্যাতন চালাতো। প্রায় নয় মাস আগে আমাকে সাবল দিয়ে মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয় এবং আমার পেটে সাবল দিয়ে আঘাত করে। তারপরে সে আমাকে বাবার বাড়ি তাড়িয়ে দেয়। আমি এখন জোড়পুকুরে আমার বাবার বাড়িতে আছি। কিছুদিন থেকে ছেলেকে বিষ খাইয়ে হত্যা করবে বলে হুমকি দিয়ে আসছিল সে। আজকে আমার স্বামীর বাড়ি সহড়াতলা গ্রামের জনৈক নওশাদ আলী মোবাইল ফোনে খবর দেন আমার ছেলে বিষ খেয়েছে। 

আমাকে স্থানীয় কিছু লোক জানিয়েছেন শিশু ছেলের মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে ঘরের মধ্যে আটকে রেখেছে।  খবর শুনে বড় মেয়ে ফাতেমাতুজ্জোহরা ওখান থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

ওমর ফারুকের বোন ফাতেমাতুজ্জোহরা জানান, আমি মৃতপ্রায় ছোট ভাইকে নিয়ে হাসপাতালে আসতে চাইলে বাবা আমাকে প্রথমে বাধা দেন। এ সময় তিনি অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও করেন।

তেঁতুলবাড়িয়া ইউপির সহড়াতলা গ্রামের মেম্বার বজলুর রহমান জানান, আমি শুনেছি। তবে বাবা নাকি শিশু নিজেই বিষ খেয়েছে তা শিশুটির জ্ঞান না ফেরা পর্যন্ত বলা যাবে না। তবে গ্রামের অনেকেই এ কথাটা বলাবলি করছে।

এদিকে গাংনী থানার এসআই হাবিবুর রহমান জানান, শিশুর বিষপানের বিষয়ে নিবিড়ভাবে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। ঘটনাস্থল থেকে বিষের বোতলটিও উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গাংনী থানার ওসি ওবায়দুর রহমান জানান, পুলিশ বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম