বাবার অপহরণ মামলার পর মেয়ে জানালেন, ‘স্বেচ্ছায় বাড়ি ছেড়েছি’

ঢাকা, শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৭,   ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

বাবার অপহরণ মামলার পর মেয়ে জানালেন, ‘স্বেচ্ছায় বাড়ি ছেড়েছি’

বরিশাল প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০৫ ২০ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৮:০৬ ২০ অক্টোবর ২০২০

বাবার অপহরণ মামলার পর মেয়ে জানালেন, ‘স্বেচ্ছায় বাড়ি ছেড়েছি’-সংগৃহীত ছবি।

বাবার অপহরণ মামলার পর মেয়ে জানালেন, ‘স্বেচ্ছায় বাড়ি ছেড়েছি’-সংগৃহীত ছবি।

বাড়ি থেকে পালিয়ে প্রেমিকের কাছে যাওয়ায় মেয়ে নাবালিকা দাবি করে অপহরণ মামলা করেছেন এক বাবা। মামলার পর আচমকা মেয়েটি ফেসবুকে এসে জানায়, তাকে কেউ অপহরণ করেনি। স্বেচ্ছায় বাড়ি ছেড়ে প্রেমিক রাব্বিকে বিয়ে করে সংসার পেতেছেন।

সম্প্রতি এমন চাঞ্চল্যকর ঘটনা বরিশালের গৌরনদী উপজেলার শাওড়া গ্রামে ঘটেছে। 

স্থানীয় সূত্র জানায়, শাওড়া গ্রামের লাল মিয়া সরদারের মেয়ে লামিয়া আক্তারের সঙ্গে প্রতিবেশী আমীর হোসেন শেখের ছেলে রাব্বি শেখের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

গত ১৪ আগস্ট লামিয়া তার বাবার বাড়ি থেকে পালিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে ওঠে। তখন স্থানীয় পৌর কাউন্সিলরের সহায়তায় রাব্বির পরিবার লামিয়াকে তার বাবার কাছে পৌঁছে দেয়। গত ১০ অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় আবারো বাবার বাড়ি থেকে পালায় লামিয়া। প্রেমিক রাব্বিকে নিয়ে এলাকাও ছাড়েন লামিয়া।

গত ১১ অক্টোবর লামিয়ার বাবার করা মামলায় প্রেমিক রাব্বি শেখ, তার মা রিনা বেগম, বড় ভাই শাওন শেখ ও ছোট ভাই রাকিব শেখকে আসামি করা হয়েছে। 

মামলা করার পরই অজ্ঞাত স্থান থেকে লামিয়া ফেসবুকে নিজের বক্তব্যের একটি ভিডিও ক্লিপ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন যে, তিনি সাবালিকা, তাকে কেউ অপহরণ করেনি। স্বেচ্ছায় বাড়ি ছেড়ে এসে প্রেমিক রাব্বিকে বিয়ে করে সংসার পেতেছেন।

রাব্বির বড় ভাই শেখ শাওন বলেন, ঘটনার দিন গৌরনদী পৌর মেয়র মো. হারিছুর রহমানের সঙ্গে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ছিলাম। এ ব্যাপারে কিছু জানি না। কিন্তু মামলার আসামি হয়ে গেছি।

তিনি আরো বলেন, প্রেম ও বিয়ে যদি অপরাধ হয় তবে রাব্বি অপরাধী। আমাদের আসামি করা হলো কেন? এখন মামলা দিয়ে আমাদের হয়রানি করা হচ্ছে।

মামলার বাদী লামিয়ার বাবা লাল মিয়া সরদার বলেন, আমার মেয়ে অপহরণকারীদের শেখানো ভাষায় কথা বলছে। কারণ ওরা লামিয়াকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ