ইসলামপুরে এখনো কমেনি আলুর দাম!

ঢাকা, সোমবার   ২৬ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১১ ১৪২৭,   ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ইসলামপুরে এখনো কমেনি আলুর দাম!

ইসলামপুর (জামালপুর) প্রতিনিধি   ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৪৪ ১৭ অক্টোবর ২০২০  

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার হাট-বাজারগুলোতে সরকারি নির্দেশের পরও কমেনি আলুর দাম। ফলে ভোক্তাদের প্রতি কেজি আলু ক্রয় করতে হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে।

শনিবার (১৭অক্টোবর) বিকেলে সরেজমিনে দেখা যায়, পৌর শহরের কেন্দ্রীয় বাজারসহ উপজেলার গাইবান্ধা ইউপির নাপিতেরচর বাজার, পোড়ারচর বাজার, কড়ইতলা মোল্লা বাজার ও টানাব্রিজ বাজারে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে। এছাড়া চিনাডুলী ইউপির গুঠাইল হাট, পলবান্দা ইউপির সিরাজাবাদ বাজার, চরপুঁটিমারী ইউপির ডিগ্রিচর বাজার, বেনুয়ারচর বাজার, চর গোয়ালিনী ইউপির ডিগ্রিচর বোর্ড বাজার, কান্দারচর বাজার, নোয়াপাড়া ইউপির উলিয়া বাজার ও রামভদ্রা বাজারসহ বিভিন্ন হাট-বাজারগুলোতে একইভাবে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে।

ভোক্তা পর্যায়ে সর্বোচ্চ ৩০ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রির নির্দেশ রয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। দাম নির্ধারণ করে সম্প্রতি কৃষি বিপণন অধিদফতরের পক্ষ থেকে ডিসিদের চিঠিও দেয়া হয়। একই সঙ্গে খুচরা পর্যায়ে আলুর কেজি ৩৮ থেকে ৪২ টাকায় বিক্রিকে অযৌক্তিক আখ্যা দেয়া হয়। কিন্তু খুচরা বাজারে এখনো আলুর কেজি ৫০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সরকারের নির্দেশকে তোয়াক্কা করছেন না ব্যসায়ীরা। হিমাগার ও পাইকারি পর্যায়েও আলুর দর নির্ধারণ করে দেয়া হলেও কেউ মানছেন না। বরং দাম না কমাতে আড়তদারদের কড়া নির্দেশ দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। সরকারি নির্দেশনার পরও ব্যবসায়ীদের এমন বেপরোয়া আচরণে আড়তদাররাও অবাক।

এদিকে আলুর মূল্যবৃদ্ধির ফলে বিপাকে পড়েছেন খুচরা ব্যবসায়ীরাও। বেশি দামের কারণে খুচরা বাজারে ক্রেতা কমেছে। এ কারণে খুচরা ব্যবসায়ীরাও আড়তে থেকে আগের তুলনায় খুবই কম করে আলু নিচ্ছেন। এতে তাদের মুনাফা যেমন কমে গেছে, তেমনি বিক্রি কমায় আড়তগুলোতে আলুর স্তুপ জমেছে, পচে নষ্টও হচ্ছে। আলুর দাম নির্ধারণ করে সম্প্রতি কৃষি বিপণন অধিদফতর থেকে ডিসিদের কাছে চিঠি পাঠানো হয়। এতে প্রতি কেজি আলুর দাম হিমাগারে ২৩ টাকা, পাইকারিতে ২৫ টাকা এবং খুচরা বাজারে ৩০ টাকা দরে বিক্রি নিশ্চিত করতে কঠোর মনিটরিং ও নজরদারির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়।

ইসলামপুরের ইউএনও এস.এম. মাজহারুল ইসলাম বলেন, আমরা শিগগিরই আলুর দাম নিয়ন্ত্রণে বাজারগুলোতে মনিটরিং করব। এতে ব্যবসায়ীরা বেশি দামে আলু বিক্রি করতে পারবে না। সরকারের নির্ধারিত মূল্যে ভোক্তারা আলু কিনতে পারবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ