আফিফ-মুশফিকের ফিফটি, মাহমুদউল্লাহ একাদশের লক্ষ্য ২৬৫

ঢাকা, সোমবার   ২৬ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১১ ১৪২৭,   ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আফিফ-মুশফিকের ফিফটি, মাহমুদউল্লাহ একাদশের লক্ষ্য ২৬৫

ক্রীড়া প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:২২ ১৭ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৭:৩২ ১৭ অক্টোবর ২০২০

আফিফ ও মুশফিক

আফিফ ও মুশফিক

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের চতুর্থ ম্যাচে আজ মাঠে নেমেছে মাহমুদউল্লাহ একাদশ এবং নাজমুল একাদশ। রাউন্ড রবিন লিগের ফিরতি ম্যাচে টস জিতে নাজমুল একাদশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছে মাহমুদউল্লাহ একাদশ। শুরুতে কয়েকটি উইকেট হারালেও মুশফিকুর রহিম ও আফিফ হোসেনের ফিফটিতে ভালো সংগ্রহ পেয়েছে নাজমুলের দল।

নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে নাজমুল একাদশের সংগ্রহ ৮ উইকেট হারিয়ে ২৬৪ রান।

নাজমুল একাদশের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন সৌম্য সরকার ও পারভেজ হোসেন ইমন। চার বলে মাত্র ৮ রান করে রুবেলের বলে বোল্ড হন সৌম্য। পরের উইকেটও একইভাবে শিকার করেন এই পেসার। অধিনায়ক শান্তকে মাত্র ৩ রানে ফেরান এই ফাস্ট বোলার।

মুশফিকের সঙ্গে জুটি বেঁধে বড় কিছুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন ইমন। তবে সুমন খানের ডেলিভারিতে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরে যান তিনি। এর আগে ১৯ রান করেন এই ওপেনার।

প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দিয়ে দলকে এরপর এগিয়ে নেন মুশফিকুর রহিম ও আফিফ হোসেন ধ্রুব। মাঠের চারদিকে বাহারি সব শটে ৯৮ রানে পৌঁছে যান আফিফ।

তবে মুশফিকের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। তার ১০৭ বলের ইনিংসটি সাজানো ছিল ১২টি চার এবং একটি ছক্কায়।

আফিফ আউট হওয়ার পর ব্যক্তিগত অর্ধশতক পূরণ করেন মুশফিক। কিন্তু এরপর ইনিংসটি আর বড় করতে পারেননি তিনি। ব্যক্তিগত ৫২ রানে আউট হন মিস্টার ডিপেন্ডেবল। 

দ্রুত ২ উইকেটের পতন হলে দলের হাল ধরেন ইরফান শুক্কুর ও তৌহিদ হৃদয়। এদিন বেশ মারমুখী ছিলেন ইরফান। তিনি শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৪৭ রানে। 

শেষ ৭ বলে তিন উইকেট হারায় নাজমুল একাদশ। রুবেল হোসেন তিনটি ও এবাদত হোসেন দুটি উইকেট শিকার করেন। 

টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেই মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই দল। সেবার জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছিলো নাজমুল একাদশ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল