সভাপতির বাসায় চলে নরসিংদী বিএনপি’র কার্যক্রম

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ১৪ ১৪২৭,   ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সভাপতির বাসায় চলে নরসিংদী বিএনপি’র কার্যক্রম

নরসিংদী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:৫৯ ২ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৭:৩৯ ২ অক্টোবর ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

অভ্যন্তরীণ কোন্দলে জর্জরিত নরসিংদী জেলা বিএনপি। সিনিয়র নেতাদের দ্বন্দ্বে দলটির রাজনীতি এখন অচল অবস্থায়। এছাড়া নরসিংদীতে কার্যালয় না থাকায় দলীয় কার্যক্রম চালানো হয় সভাপতির বাসায়। এ নিয়ে হতাশ জেলা ও উপজেলার নেতা-কর্মীরা।

জেলা বিএনপির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কর্মী জানান, বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে নরসিংদীতে যারাই নেতৃত্বে ছিলেন তারা নিজেদের আখের গোছাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। দল বা কর্মীদের দিকে খেয়াল দেননি। এ কারণেই নরসিংদী বিএনপির এমন করুণ দশা।

জানা গেছে, দ্বিধা-বিভক্তি রয়েছে খোদ জেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুল কবির (খোকন) ও সহ-সভাপতি মনজুর এলাহী গ্রুপের মধ্যে। আর কেন্দ্রীয় পর্যায়ে নরসিংদী জেলা নিয়ে দ্বিমত রয়েছে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান ও খোকনের মধ্যে।

জেলার রাজনীতির ইতিহাস বলছে, ১৯৯৬ সালের নির্বাচন থেকেই নরসিংদীতে পতন শুরু হয় বিএনপির। ওই নির্বাচনে পাঁচ আসনের মধ্যে দুটিতে হেরে যায় বিএনপি। ২০০১ সালে চারটি আসন পেলেও ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালে সবকটি আসনে ভরাডুবি হয় দলটির।

এদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন নরসিংদী জেলা বিএনপির নেতৃত্বে বসার পর যোগ-বিয়োগ করে অনেক প্রভাবশালী নেতাকে পদবঞ্চিত করেন। এর মধ্য দিয়েই প্রকাশ্যে আসে জেলা বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দল।

জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মনজুর এলাহী বলেন, অতীতে নরসিংদী থেকে বিএনপির অনেক নেতা মন্ত্রী-এমপি হয়েছেন। কিন্তু নিজের পকেট ভরতে ব্যস্ত ছিলেন তারা। এ কারণে জেলার রাজনীতি ও নেতা-কর্মীদের দুরবস্থায় পড়তে হয়েছে। আমরাও এর মধ্য দিয়েই দলকে কোনো রকমে চালিয়ে নিচ্ছি।

নরসিংদী জেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুল কবির খোকন বলেন, জেলায় বিএনপিতে কোনো কোন্দল নেই। কিছু নেতা নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েছেন। তবে তা সম্পূর্ণ তাদের ব্যক্তিগত। এরসঙ্গে দলের কোনো সম্পর্ক নেই। আমার বাসাকে আপাতত অস্থায়ী কার্যালয় বানানো হয়েছে। পরবর্তীতে স্থায়ী কার্যালয় বানানো হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ/জেডআর/এসআর