ছাত্রাবাসে ধর্ষণ: লুঙ্গি পরে পালাতে গিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি মাসুমের

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২২ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৭ ১৪২৭,   ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ছাত্রাবাসে ধর্ষণ: লুঙ্গি পরে পালাতে গিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি মাসুমের

সিলেট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:০৯ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১১:৩০ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

গ্রেফতার হওয়া মাসুম

গ্রেফতার হওয়া মাসুম

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে তরুণী ধর্ষণ মামলার এজাহারভুক্ত ছয় নম্বর আসামি মাহফুজুর রহমান মাসুমকে গ্রেফতার করেছে ডিবি। সোমবার রাত ১২টায় জেলা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের সমন্বয়ে কানাইঘাট থানা-পুলিশ জৈন্তাপুর উপজেলার হরিপুর থেকে লুঙ্গি পরে পালানোর সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

কানাইঘাট থানার ওসি শামসুদ্দোহা জানান, মাহফুজকে মঙ্গলবার মহানগরের শাহপরান থানায় হস্তান্তর করার পর আদালতে হাজির করা হতে পারে।

মাহফুজুর রহমান এমসি কলেজের ইংরেজি বিভাগের স্মাতক (সম্মান) শ্রেণির চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। ছাত্রাবাসে ধর্ষণকাণ্ডে অভিযুক্ত ছয়জনের মধ্যে তিনিই একমাত্র নিয়মিত শিক্ষার্থী। তার নামে ছাত্রাবাসে সিট বরাদ্দ ছিল। তবে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠায় সিটটি কলেজ কর্তৃপক্ষ বাতিল করেছে। মাহফুজের বাড়ি সিলেটের সীমান্ত উপজেলা কানাইঘাটের দক্ষিণ বাণীগ্রাম ইউপির লামা-দলইকান্দি গ্রামে।

পুলিশ ও গোয়েন্দা সূত্র জানায়, মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমানসহ একইদিন চারজন গ্রেফতার হওয়ার পর মাহফুজ ও তারেককে ধরতে তৎপর ছিল পুলিশের একাধিক দল। এর সঙ্গে গোয়েন্দা তৎপরতাও ছিল।

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার থেকে কানাইঘাট, জকিগঞ্জ ও জৈন্তাপুর এলাকায় তৎপরতা চালানোর একপর্যায়ে হরিপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় মাহফুজ পরনের লুঙ্গি ছিল। তিনি গ্রেফতার এড়াতে এই বেশ ধরেছিলেন। তবে তার গন্তব্য কোথায় ছিল - এ বিষয়ে কিছু বলেননি তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস