ইয়াবায় অর্থলগ্নিকারীদের ধরতে সাঁড়াশি অভিযান

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৭ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১২ ১৪২৭,   ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ইয়াবায় অর্থলগ্নিকারীদের ধরতে সাঁড়াশি অভিযান

চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:১২ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ০৯:১৬ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

চট্টগ্রামে ইয়াবার পাচার রোধে অর্থলগ্নিকারীদের ধরতে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। বুধবার আঞ্চলিক টাস্কফোর্সের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। 

বিভাগীয় কমিশনার এ বি এম আজাদের সভাপতিত্বে অনলাইন মাধ্যমে অনুষ্ঠিত এ সভায় রেঞ্জ ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন, পুলিশ কমিশনার সালেহ্ মোহাম্মদ তানভীরসহ প্রশাসন, পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন। 

সভায় জানানো হয়- সম্প্রতি কোটি কোটি টাকার ইয়াবার চালান ধরা পড়ায় এতে বড় বড় রাঘব-বোয়ালদের সংশ্লিষ্টতা ও সক্রিয়তা প্রমাণিত হয়। তারা বিভিন্ন পথ ঘুরে ইয়াবার অর্থ মিয়ানমারে পৌঁছে দেয়। তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারলেই ইয়াবা ব্যবসা বন্ধ সম্ভব বলে সভায় অভিমত দেন প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা। 

আরো পড়ুন >>> বাঁচানো গেল না শিক্ষার আলো ছড়ানো সেই বিদ্যালয়টি

এছাড়া সন্দেহজনক লেনদেন নিয়ে কাজ করতে চেম্বার এবং বাংলাদেশ ব্যাংককে এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত করার কথা জানান তারা। 

বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ বলেন, ইয়াবা ব্যবসায়ী ও ইয়াবা চোরাচালানকারীরা জাতির শত্রু। শক্ত হাতে এদের প্রতিরোধ করতে হবে। বিশেষ করে চোরাচালানে অর্থলগ্নিকারীদের আইনের আওতায় আনতে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এছাড়া সীমান্ত এলাকায় চোরাচালানের কুফল নিয়ে ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরি করতে সকল বাহিনীর সমন্বিত পদক্ষেপ প্রয়োজন। 

আরো পড়ুন >>> খুলছে সৌদি দূতাবাস, প্রবাসীদের শৃঙ্খলা বজায় রাখার আহ্বান 

রেঞ্জ ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, সম্প্রতি কক্সবাজার জেলা পুলিশে বড় রদবদল করা হয়েছে। এছাড়া চোরাচালান বন্ধে টহল বৃদ্ধির পাশাপাশি যৌথ কর্মপন্থা ঠিক করতে বিজিবির সঙ্গে মতবিনিময় করা হয়েছে। শিগগিরই এর ফলাফল পাওয়া যাবে। 

সিএমপি কমিশনার সালেহ্ মোহাম্মদ তানভীর বলেন, সমাজের সব অপরাধের জনক হলো মাদক। তাই মাদককে শক্তভাবে নির্মূল করে যুবসমাজ ও দেশের অর্থনীতিকে রক্ষা করতে হবে। এজন্য সিএমপি প্রতিটি থানা এলাকায় মাদকে অর্থলগ্নিকারীদের শনাক্তে বিশেষ পদক্ষেপ নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে