তালাকের পরও ‘সম্পর্ক’, কাটা হলো বিউটিশিয়ানের মাথার চুল

ঢাকা, বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৩ ১৪২৭,   ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

তালাকের পরও ‘সম্পর্ক’, কাটা হলো বিউটিশিয়ানের মাথার চুল

নাটোর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:৩২ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ২১:৩৫ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

নির্যাতনের শিকার নারীর চুল কাটা ছবি।

নির্যাতনের শিকার নারীর চুল কাটা ছবি।

প্রেমের সূত্র ধরে এক বিউটিশিয়ানকে বিয়ে করেছিলেন আলমগীর হোসেন। পরিবার বিয়েটি না মানায় চার মাস আগে বিউটিশিয়ানকে তালাক দেন আলমগীর। তবুও রেহাই মেলেনি বিউটিশিয়ানের। আবারো প্রেমের সম্পর্কের অভিযোগ তুলে বিউটিশিয়ানকে বেধড়ক পিটিয়ে মাথার চুল কেটে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে আলমগীরের প্রথম স্ত্রীর বিরুদ্ধে ।

নাটোরের বড়াইগ্রামের আহম্মেদপুর শওকত প্লাজার রোজী বিউটি পার্লারে গত ৮ সেপ্টেম্বর ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলেও মামলা রুজু করেনি পুলিশ।

নির্যাতনের শিকার নারী জানান, ৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় বিউটি পার্লার বন্ধ করার সময় সাবেক স্বামী আল আমিন হোটেলের মালিক আলমগীর হোসেনের বর্তমান স্ত্রী পান্না খাতুন, ছোট ভাই ফারুক হোসেন ও তার স্ত্রী হীরা বেগমসহ সাবেক শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা উপস্থিত হন। আচমকা তাকে পার্লারের ভেতরে ঢুকিয়ে বেধড়ক মারধর শুরু করেন। এক পর্যায়ে মাথার চুলও কেটে দেয় তারা। পরে বিউটি পার্লার থেকে টেনে বাইরে নিয়েও নির্যাতন করা হয়। ঘটনাটি দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে নির্যাতনের শিকার নারীকে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসকের কাছে নেন।

তিনি আরো জানান, ওই দিন রাতেই সাবেক স্বামী আলমগীর হোসেন, স্ত্রী পান্না খাতুনসহ সাতজনের বিরুদ্ধে বড়াইগ্রাম থানায় মামলা করতে যান। এজাহার নিলেও ১৬ দিনে মামলা নথিভুক্ত হয়নি।

ঘটনা সম্পর্কে এ নারী জানান, বনপাড়া বাজারে বিউটি পার্লার থাকার সময় একই বাজারের হোটেল ব্যবসায়ী আলমের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক হয়। সেই সম্পর্কের সূত্র ধরে গত নভেম্বরে তাদের বিয়ে হয়। কিন্তু আলমের পরিবার বিয়ে না মানায় চার মাস আগে তাদের তালাকও হয়। তালাকের পর থেকে সাবেক স্বামীর সঙ্গে কোনো যোগাযোগ নেই। তবুও তার ওপর নির্যাতন চালানো হয়েছে।

বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলীপ কুমার দাস বলেন, নির্যাতনের শিকার ওই নারীর অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তে সত্যতা পেলে মামলা রুজু করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ