বগুড়ায় একদিনে সাড়ে ৭ হাজার মানুষকে টিকা প্রদান 

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ১৮ ১৪২৮,   ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

বগুড়ায় একদিনে সাড়ে ৭ হাজার মানুষকে টিকা প্রদান 

বগুড়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৩৯ ২৬ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৯:৪০ ২৬ অক্টোবর ২০২১

স্যাটেলাইট কার্যক্রমের আওতায় একদিনে  সাড়ে ৭ হাজার জন করোনার প্রথম ডোজ টিকা পেয়েছেন। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

স্যাটেলাইট কার্যক্রমের আওতায় একদিনে  সাড়ে ৭ হাজার জন করোনার প্রথম ডোজ টিকা পেয়েছেন। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বগুড়ায় সদর উপজেলার এরুলিয়া ইউনিয়নে স্যাটেলাইট কার্যক্রমের আওতায় একদিনে  সাড়ে ৭ হাজার জন করোনার প্রথম ডোজ টিকা পেয়েছেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এই টিকাদান কর্মসূচি শেষ হয়। এর আগে একই দিন সকাল ৯টা থেকে টিকাদান কার্যক্রম শুরু করা হয়। ওই ইউনিয়নের শিকারপুর ডি.ইউ আলিম মাদরাসা মাঠে এ টিকাদান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। 

এই স্যাটেলাইট কার্যক্রম পরিচালনা করে সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা দপ্তর। এই কর্মসূচির সার্বিক ব্যবস্থাপনা করে এরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ।স্যাটেলাইট কর্মসূচিতে এরুলিয়াসহ আশপাশের ইউনিয়নের বাসিন্দারাও করোনা টিকা নিতে আসেন। এসময় নারী ও পুরুষদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে টিকা নিতে দেখা গেছে।

জানা গেছ,  দীর্ঘদিন ধরে অনেকে রেজিস্ট্র্রেশন করেও করোনা টিকা নিতে পারছিলেন না। আবার অনেকে শহরে গিয়ে টিকা নিতে আগ্রহী ছিলেন না। এ জন্য এরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ব্যবস্থাপনায় স্যাটেলাইট গ্রোগামের আওতায় গণটিকার কার্যক্রমটি পরিচালনা করা হয়। কর্মসূচিতে সারাদিনে ৭ হাজার মানুষকে প্রথম ডোজ টিকা দেওয়ার লক্ষ্য ছিল। তবে বিকেল গড়াতেই তা ফুরিয়ে যায়। পরে অতিরিক্ত আরও ৫০০ ডোজ টিকা এনে উপস্থিত মানুষদের দেওয়া হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ আরো জানায়,  ১২টি বুথের মাধ্যমে দিনব্যাপী এই কার্যক্রমটি পরিচালনা করা হয়েছে। এতে প্রতি বুথে ২ জন করে নার্স দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও এরুলিয়া ইউনিয়নসহ আশপাশের ইউনিয়নের শুধুমাত্র রেজিস্ট্রেশন আছে এমন ব্যক্তিদের টিকা দেওয়া হয়।

টিকাদান কার্যক্রমের বিষয়ে এরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আরিফুজ্জামান জুয়েল বলেন, সারাদিনে কোনরকম বিশৃঙ্খলা ছাড়াই সাধারণ মানুষদের টিকা দেয়া হয়েছে। করোনা টিকা দিতে পেরে আশাপাশের এলাকার সবাই খুব আনন্দিত।

বগুড়া সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সামির হোসেন মিশু বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে অনেক মানুষ রেজিস্ট্রেশন করেও টিকা পাচ্ছিলেন না। সেজন্য আমরা এলাকায় প্রচারণা চালিয়ে এ কার্যক্রম হাতে নিয়েছি। দ্বিতীয় ডোজের সময়ও আজকের টিকাপ্রাপ্তদের একইভাবে টিকা দেওয়া হবে।’

এর আগে চলতি মাসের ১৬ ও ২৩ অক্টোবর গোকুল ও নুনগোলা ইউনিয়নে একই ভাবে স্যাটেলাইট কার্যক্রমের আওতায় একদিনে সাড়ে ১০ হাজার মানুষকে করোনার প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে