রংপুর বিভাগে করোনায় ১৪ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ৫৫৭ জন

ঢাকা, সোমবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ১২ ১৪২৮,   ১৮ সফর ১৪৪৩

রংপুর বিভাগে করোনায় ১৪ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ৫৫৭ জন

রংপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৩৩ ৪ আগস্ট ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মঙ্গলবার সকাল থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে ৫৫৭ জন। 

মঙ্গলবার বিভাগে মৃতের সংখ্যা ছিল ১৪ জনে। আর আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৫০২ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৫৫৭ জন। গত ৩৫ দিনে বিভাগে করোনায় প্রাণ হারালো ৪৭০ জন। 

বুধবার দুপুরে রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক মো. মোতাহারুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার সকাল থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে রংপুর জেলার ৪ জন, নীলফামারীতে ২ জন, কুড়িগ্রামে ২ জন, ঠাকুরগাঁওয়ের ৩ জন ও দিনাজপুরে ৩ জন।

রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় ১ হাজার ৭৩৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৫৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে রংপুরের ১৬৯ জন,  পঞ্চগড় ৫৯ জন, নীলফামারীর ৬২ জন, লালমনিরহাটে ২৬ জন,কুড়িগ্রামের ৮৩ জন, ঠাকুরগাঁও জেলায় ৫৯ জন, দিনাজপুরে ৫৫ ও গাইবান্ধায় ৪৪ জন রয়েছে। 

নতুন করে মারা যাওয়া ১৪ জনসহ বিভাগে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯৭৮ জনে। এর মধ্যে রংপুর জেলায় ২১৬ জন, পঞ্চগড় জেলায় ৬১ জন, নীলফামারী জেলায় ৭১ জন, লালমনিরহাট জেলায় ৫৬ জন, কুড়িগ্রাম জেলায় ৫৬ জন, ঠাকুরগাঁও জেলায় ১৮৯ জন, দিনাজপুর জেলায় ২৭৯ জন গাইবান্ধা জেলায় ৫০ জন রয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩৩৯ জন।

নতুন শনাক্ত ৫৫৭ জনসহ বিভাগে ৪৬হাজার ৪৮৬ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে রংপুর জেলায় ১০ হাজার ৩৭১ জন, পঞ্চগড় জেলায় ২ হাজার ৯২৫ জন, নীলফামারী জেলায় ৩ হাজার ৮০৩ জন, লালমনিরহাট জেলায় ২ হাজার ৩২৭ জন, কুড়িগ্রাম জেলায় ৩ হাজার ৭৮৩ জন, ঠাকুরগাঁও জেলায় ৬ হাজার ৩০২ জন, দিনাজপুর জেলায় ১২ হাজার ৯৮০ জন এবং গাইবান্ধা জেলায় ৩ হাজার ৯৯৫ জন রয়েছেন।

করোনা শনাক্তের শুরুর পর থেকে রংপুর বিভাগে ২ লাখ ২২ হাজার ২৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৬ হাজার ৪৮৬ জন করোনা রোগী পাওয়া গেছে। এরমধ্যে মারা গেছে ৯৭৮ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ৩৫ হাজার ৯২৭ জন। বিভাগের আট জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে দিনাজপুর, রংপুর ও ঠাকুরগাঁও জেলায়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস