রামেক হাসপাতালে আরো ১৩ মৃত্যু, নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাচ্ছে সংক্রমণ

ঢাকা, রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ১২ ১৪২৮,   ১৭ সফর ১৪৪৩

রামেক হাসপাতালে আরো ১৩ মৃত্যু, নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাচ্ছে সংক্রমণ

রাজশাহী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:৩৮ ২২ জুন ২০২১   আপডেট: ০৯:৪৪ ২২ জুন ২০২১

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (ফাইল ছবি)

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (ফাইল ছবি)

রাজশাহী বিভাগে করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের অনেকটা বাইরে চলে যাচ্ছে। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু হারও। গত ২৪ ঘণ্টায় এ বিভাগে করোনায় শনাক্ত হয়েছেন ৭৯৯ জন। আর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ১৩ জন রোগী। এর মধ্য দিয়ে বিভাগে সংক্রমণ দাঁড়াল ৪৮ হাজার ৫৬ জনে।

আর মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৭৩৯ জনে। ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে ছয়জন করোনায়, ছয়জন করোনার উপসর্গ নিয়ে এবং একজন করোনামুক্ত হওয়ার পর মারা গেছেন। রোগীর চাপ বাড়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, মৃত ১৩ জনের মধ্যে ছয়জনেরই বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জে। এছাড়াও তিনজন করে রাজশাহী এবং নাটোরের বাসিন্দা। বাকি একজন নওগাঁর বাসিন্দা। করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে এসেছিলেন তারা। ৩০৯ শয্যার রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে সোমবার সকাল ৯টা পর্যন্ত রোগী ভর্তি ছিলেন ৪০২ জন। এরমধ্যে আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন ১৯ জন রোগী। করোনা নিয়ে এ পর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ১৮০ জন। এছাড়াও উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ১৬৪ জন। করোনা ধরা পড়েনি হাসপাতালে ভর্তি ৫৮ জনের নমুনায়। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৬২ জন। এই এক দিনে হাসাপাতাল ছেড়েছেন ৩৪ জন।

রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা যাওয়া এ ১৩ জনের মধ্যে সর্বোচ্চ তিনজন মারা গেছেন ২৯/৩০ নম্বর ওয়ার্ডে। হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) মারা গেছেন দুইজন। আরো দুইজন করে মারা গেছেন ১, ১৬ ও ২২ নম্বর ওয়ার্ডে। এ ছাড়াও একজন করে মারা গেছেন ৩ ও ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে।

তিনি আরো জানান, একদিনে করোনা পজিটিভ হয়ে মারা গেছেন ছয়জন। তার মধ্যে তিনজনই চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার বাসিন্দা। আর দুইজন রাজশাহীর এবং একজন নাটোরের বাসিন্দা। আর করোনার উপসর্গ নিয়ে একই দিনে হাসপাতালে মারা গেছেন আরো ছয়জন। তাদের মধ্যে তিনজন চাঁপাইনবাবগঞ্জের, দুইজন নাটোরের এবং একজন নওগাঁর বাসিন্দা। করোনামুক্ত হয়ে মারা যাওয়া একমাত্র রোগীর বাড়ি রাজশাহী। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের মরদেহ দাফনের পরামর্শ দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এ দিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে সর্বোচ্চ ৩৭২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে রাজশাহী জেলায়। জয়পুরহাটে ৯১, নাটোরে ৭৭, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৬১, নওগাঁয় ৫৪, পাবনায় ৪৮ এবং সিরাজগঞ্জে ২১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য দফতরের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, বিভাগে এ পর্যন্ত করোনা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৪ হাজার ৭৬২ জন। ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে এসেছেন ৮৯ জন। বিভাগে এ পর্যন্ত করোনা জয় করেছেন ৩৫ হাজার ৫৭৫ জন। এর মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২৬৬ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য দফতরের হিসাবে, এ পর্যন্ত বিভাগে সর্বোচ্চ ১৪ হাজার ৫৪০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে রাজশাহী জেলায়। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৮ হাজার ৮৮৩ জন। মহামারিতে জেলায় মারা গেছেন ১২৪ জন। বিভাগে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১২ হাজার ৯৬৫ জনের করোনা ধরা পড়েছে বগুড়ায়। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন সর্বোচ্চ ১২ হাজার ২০৬ জন। বিভাগে সবচেয়ে বেশি ৩৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বগুড়ায়।

সিরাজগঞ্জে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪ হাজার ২৩ জনের। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ৯১ জন। এই জেলায় মারা গেছেন ২৮ জন। ৩ হাজার ৬৫০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে নওগাঁয়। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৪২৩ জন। এই জেলায় ৬৪ জন মারা গেছেন করোনায়।

পাবনায় করোনা ধরা পড়েছে ৩ হাজার ৬৩৫ জনের। মারা গেছেন ২২ জন। করোনা জয় করেছেন পাবনার ৩ হাজার ৩৭২ জন। ৩ হাজার ৬০৪ জনের করোনা ধরা পড়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৩০৪ জন। এ জেলায় ৯১ জনের মৃত্যু হয়েছে। জয়পুরহাটে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৮২১ জনের। এরমধ্যে মারা গেছেন ২০ জন এবং করোনা জয় করেছেন এই জেলার ১ হাজার ৭৩৮ জন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম