স্ক্রাচে ভর করে ৫৭ সেকেন্ডে ১০০ মিটার পথ অতিক্রমে গড়লেন রেকর্ড

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪২৮,   ০৫ শাওয়াল ১৪৪২

স্ক্রাচে ভর করে ৫৭ সেকেন্ডে ১০০ মিটার পথ অতিক্রমে গড়লেন রেকর্ড

সাত রঙ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:২৬ ১০ মার্চ ২০২১   আপডেট: ১১:০৯ ১১ মার্চ ২০২১

ছবি: স্ক্রাচে ভর করে ৫৭ সেকেন্ডে ১০০ মিটার পথ অতিক্রম

ছবি: স্ক্রাচে ভর করে ৫৭ সেকেন্ডে ১০০ মিটার পথ অতিক্রম

কেউবা পরপর ৩৬ সিঁড়ি আরোহণ করে, কেউ আবার ক্রাচে করে ১০০ মিটার। বিশ্বে অনেক মানুষ রয়েছে, যারা এভাবেই অদ্ভুত সব কাজ করে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে নিজেদের নাম লিখিয়েছেন। এরা সবাই নিজ গুণে মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন বিশ্বে।

এসব মানুষেরা অন্যদের চেয়ে অনেকটাই ব্যতিক্রম। এ কারণেই তারা অবিশ্বাস্য সব কাণ্ড করে দেখিয়েছেন পুরো বিশ্বকে। এদের কর্মকাণ্ড দেখলে আপনি রীতিমত তাজ্জব বনে যাবেন। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক তাদের সম্পর্কে-

সবচেয়ে বড় হট ডগ কার্ট

সবচেয়ে বড় হট ডগ কার্ট
আমেরিকান মার্কাস ডেইলি একটি হট ডগের কার্ট বানিয়েছেন তাও আবার বিশ্বের সবচেয়ে বড়। এর আগে কখনো এত বড় ফুড কার্ট দেখা যায়নি। এই কার্টটির উচ্চতা ৩.৭২ মিটার (১২ ফিট ২.৭৫ ইঞ্চি), প্রস্থ ২.৮১ মিটার (৯ ফিট ৩ ইঞ্চি) এবং দৈর্ঘ্য ৭.০৬ মিটার (২৩ ফিট ২ ইঞ্চি)। কার্টটি মার্কাস রেকর্ড ভাঙার জন্য নয়, বরং পারিবারিক ব্যবসায়ের জন্য তৈরি করেছিলেন। মোবাইল কার্টটি বর্তমানে আমেরিকার মিসৌরি শহরে রয়েছে। ভবিষ্যতে মার্কাস কার্টটিকে নিয়ে নিজ শহরে স্থায়ী রেস্টুরেন্ট করতে চান।

দ্রুত ডিরেক্টরি ছেঁড়া

দ্রুত ডিরেক্টরি ছেঁড়ামাত্র এক মিনিটে সবচেয়ে বেশি টেলিফোন ডিরেক্টরি ছিঁড়ে গিনেস বুকে নাম লেখান আমেরিকান সুন্দরী লিনসে লিন্ডবার্গ। রেকর্ড গড়া অনুষ্ঠানটি হয়েছিল ২০১৪ সালের নভেম্বরে আমেরিকার টেক্সাসের অস্টিনের সেন্ট্রাল মার্কেটে। দ্রুত সময়ে ১ হাজার পাতার ৫টি টেলিফোন ডিরেক্টরি ছেঁড়েন এই সুন্দরী। এর আগে লিনসে অভিজ্ঞতার ঝুলিতে যোগ করেছিলেন বাহুতে আপেল রেখে ভাঙা ও কম সময়ে ফ্রাইপেন বাঁকা করার রেকর্ডও।

কম সময়ে বার্গার সাবাড়

কম সময়ে বার্গার সাবাড়
মাত্র তিন মিনিটে ১২টি হ্যামবার্গার সাবাড় করা চাট্টিখানি কথা নয়! এমনই এক খাদকের দেখা পেয়েছে জাপান। আর এই বিরল রেকর্ডটি দখল করে নেন তেকেরু কুবেইশি। সাবাড় করা প্রতিটি হ্যামবার্গারের ওজন ছিল ৫০ গ্রাম। তবে কুবেইশি প্রতিটি বার্গারের স্বাদ বাড়ানোর জন্য সঙ্গে মায়োনিসও বেছে নেন।

গ্যারি টার্নার

গ্যারি টার্নার
বিরল এক রোগে আক্রান্ত এ ব্যক্তি। এহলারস-ড্যানলস সিনড্রোম নামক বিরল রোগের কারণেই এ ব্যক্তি বিশ্বরেকর্ড গড়তে পেরেছেন। ব্রিটিশ নাগরিক গ্যারি টার্নার তার পেটের চামড়া ৬.২৫ ইঞ্চি পর্যন্ত টানতে পারেন। এ রোগটি মূলত সংযোজক-টিস্যুর ব্যাধি। যেখানে কোলাজেনটি ত্রুটিযুক্ত হয়ে ওঠে। যার ফলে শরীর থেকে চামড়া অনায়াসেই টেনে ধরা যায়।

ন্যান্সি সিফকার

ন্যান্সি সিফকার
পা দিয়েই নিশানা ছুঁড়েন এ নারী। বিরল এ দক্ষতার কারণে তিনি বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন। ন্যান্সি সিফকার পা ব্যবহার করেই ২০ ফুট দূরের কোনো লক্ষ্যবস্তুতে তীর চালাতে পারেন। ২০১৩ সালের ২০ জুন, ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলেসে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম লেখান তিনি।

ক্রাচে করে ১০০ মিটার

ক্রাচে করে ১০০ মিটারইচ্ছাশক্তির কাছে প্রতিবন্ধকতাও হার মানে কথাটি একেবারেই মিথ্যে নয়। জন্ম থেকে তামেরু জেগেই প্রতিবন্ধী, তবে স্ক্রাচে ভর করেই করেছেন বিশ্বরেকর্ড। স্ক্রাচে ভর করে ৫৭ সেকেন্ডে ১০০ মিটার পথ অতিক্রম করে গোটা বিশ্বকে তাক লাগান এই প্রতিবন্ধী। পেশায় সার্কাস অভিনেতা তামেরুর জন্ম জার্মানিতে। জন্ম থেকেই তামেরু পা ব্যবহার করতে পারেন না। কিন্তু স্বপ্ন পূরণে ছেলেবেলা থেকেই পায়ের পরিবর্তে হাতের ব্যবহার শিখেছেন। আর  ২০১৬ সালের গিনেস ওয়ার্ল্ড বুকে নাম লেখান এই প্রতিবন্ধী।

পরপর ৩৬ সিঁড়ি আরোহণ

পরপর ৩৬ সিঁড়ি আরোহণ
ধারাবাহিকভাবে সবচেয়ে বেশি সিঁড়ি বেয়ে উপরে ওঠা, তাও আবার মাথা দিয়ে! চীনের জিয়ানসু প্রদেশের জিয়াগিং শহরে ২০১৫ সালে অদ্ভুত এই রেকর্ডটি গড়েছিলেন চীনের নাগরিক লি লং লং। অনুষ্ঠানটি সরাসরি প্রচার করেছিল চীনের টেলিভিশন সিসিটিভি। ভিডিওটিতে দেখা যায় লি মাথায় ভর করে নিচ থেকে ধারাবাহিকভাবে ৩৬ সিঁড়ি বেয়ে উপরে ওঠেন। লি তার আগের রেকর্ড (৩৪টি সিঁড়ি বেয়ে উপরে ওঠা) ভেঙে ২০১৬ সালের গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নতুন করে নাম লেখান।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএ