বৃষ্টির আশায় নেচে-গেয়ে ব্যাঙের বিয়ে, খিচুড়ি দিয়ে ৫০০ অতিথিকে আপ্য
15-august

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৮ আগস্ট ২০২২,   ৩ ভাদ্র ১৪২৯,   ১৯ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

বৃষ্টির আশায় নেচে-গেয়ে ব্যাঙের বিয়ে, খিচুড়ি দিয়ে ৫০০ অতিথিকে আপ্যায়ন  

খুলনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:১৮ ৫ আগস্ট ২০২২  

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

খুলনায় দাবদাহে বৃষ্টির আশায় মহাধুমধামে ব্যাঙের বিয়ে দেওয়া হয়েছে। ডুমুরিয়া উপজেলার রূপরামপুর গ্রামে এ বিয়ের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন ৫ শতাধিক অতিথি। সেখানে নেচে-গেয়ে বিয়ের অনুষ্ঠান উদযাপন করেন তারা।

বুধবার (৩ আগস্ট) রাত ১০টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত উপজেলার রূপরামপুর দেলতলা পূজা মন্দিরে সনাতন ধর্মের নিয়মানুযায়ী বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। ছায়ামণ্ডপ, পুষ্পমাল্য, গায়ে হলুদ, আশীর্বাদের ধান-দূর্বা, খাওয়ার আয়োজনসহ সব ব্যবস্থাই ছিল এ বিয়েতে।

আয়োজকরা জানান, বুধবার ছিল শ্রাবণ মাসের ১৮ তারিখ। কিন্তু বৃষ্টি নেই, জমিতে পানি নেই। আমন চারা রোপণ করা যাচ্ছে না। আবার যেসব জমিতে চারা রোপণ করা হয়েছে, সেই জমি পানির অভাবে ফেটে চৌচির হয়ে গেছে। অনেকে শ্যালো মেশিন দিয়ে ক্ষেতে পানি দিচ্ছেন। এ কারণে বৃষ্টির আশায় ব্যাঙের বিয়ের আয়োজন করা হয়। তারা জানান, তিন দিন ধরে চলে বিয়ের প্রস্তুতি। প্রতিটি বাড়িতে বিয়ের দাওয়াত দেওয়া হয়।

বুধবার (৩) সন্ধ্যা থেকে মানুষ বিয়ের অনুষ্ঠানে আসতে থাকে। কলা গাছ ও ফুল দিয়ে সাজানো বিয়ের ছায়ামণ্ডপে রাত ১০টার দিকে বর শ্রাবণকে নিয়ে বরের বাবা সমেশ মণ্ডল ও কনে বৃষ্টিকে নিয়ে কনের মা দুঃখিনী মণ্ডল হাজির হন। রঙ-কাদা মেখে শুরু হয় নাচ-গান। পাশেই চলে বড় বড় ডেকে রান্না। উপস্থিত অতিথিরা বর-কনেকে দেখে উপহার দিয়ে খিচুড়ি খেয়ে বিয়ের অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

১০১ টাকা প্রতীকী পণে বিয়ে পড়ান রূপরামপুর দেলতলা পূজা মন্দিরের পুরোহিত নিখিল চ্যাটার্জি। তিনি বলেন, অনাবৃষ্টি ও খরা থেকে মুক্তি পেতে প্রথমে শিশুরা এ ব্যাঙের বিয়ের উদ্যোগ গ্রহণ করলেও পরে সেটি উৎসবে রূপ নেয়। আমাদের বিশ্বাস এ ব্যাঙের বিয়ের মধ্য দিয়ে অনাবৃষ্টি ও খরা কেটে যাবে। সেই বিশ্বাস থেকেই এই আয়োজন করা হয়।

বর-কনের মায়েরা বলেন, খরা থেকে মুক্তি পেতে এবং বৃষ্টির আশায় এ আয়োজন। অনাবৃষ্টির কবলে পড়লে তারা বৃষ্টির জন্য ব্যাঙের বিয়ে দিয়ে থাকেন। আর এই রীতি শতবর্ষ আগে থেকেই চলে আসছে। হিন্দুদের ধর্মগ্রন্থ রামায়ণের দেশাচারে বর্ণিত বৃষ্টির দেবতাকে খুশি করার জন্য সেই সময় থেকে ব্যাঙের বিয়ের প্রচলন হয়।

বিয়ের বাজনা, সাদনা তলায় পুরোহিতের মন্ত্রপাঠ, সাতপাকে বাঁধা, মালাবদল, সিঁদুরদান সনাতন ধর্মাবলম্বীদের রীতি অনুযায়ী সব আয়োজনের মধ্যে হলো এ ব্যাঙের বিয়ে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ

English HighlightsREAD MORE »