কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জনের বিরুদ্ধে মামলার এজাহারে যা বললেন ভুক্তভোগী নারী

ঢাকা, শনিবার   ১৬ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১ ১৪২৮,   ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জনের বিরুদ্ধে মামলার এজাহারে যা বললেন ভুক্তভোগী নারী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:৩১ ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ২২:৫১ ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১

ভিডিও থেকে প্রাপ্ত দৃশ্য

ভিডিও থেকে প্রাপ্ত দৃশ্য

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জন দাসের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের মামলা করেছেন পান্না নামে এক ভুক্তভোগী।

শুক্রবার রাতে শ্লীলতাহানির ভিডিও ফাঁস হওয়ার পর শনিবার সবুজবাগ থানায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, রাজারবাগ কালীবাড়ি রাস্তা সংলগ্ন ওই নারীর শ্বশুরের চায়ের দোকান রয়েছে। সেই দোকান সংস্কার করতে গেলে কাউন্সিলর ৪০ হাজার টাকা দাবি করেন।  এ বিষয়ে সত্যতা যাচাই করতে কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জন দাসের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করলে কাউন্সিলর তাকে রাত ৯ টা থেকে সাড়ে ৯ টার মধ্যে কাউন্সিলর কার্যালয়ে যেতে বলেন। স্বামীসহ তিনি কাউন্সিলরের কার্যালয়ে যান। 

মামলার এজাহারে তিনি আরো উল্লেখ করেন, ৪০ হাজার টাকা প্রসঙ্গে কয়েকটি কথা বলার পর তিনি আমাকে পাশের রুমে যেতে বলেন। রুমে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে দেন। আমাকে বসা থেকে উঠে দাঁড়াতে বলেন। আমি তার কথা মতো উঠে দাঁড়ালে তিনি আমায় জড়িয়ে ধরেন এবং স্পর্শকাতর স্থানে স্পর্শ করেন। আমার শ্লীলতাহানি করেন।  আমাকে নানা ধরনের অঙ্গভঙ্গি করে কু-প্রস্তাব দেন। মানসম্মানের ভয়ে কোনো চিৎকার করি নাই। ওই সময় পরের দিনের জন্য কুপ্রস্তাব দেন। তখন আমি হ্যাঁ বলে কোনো রকমে সেখান থেকে সরে নিজেকে রক্ষা করি।

ভুক্তভোগীর স্বামী ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, শনিবার বিকেলে কাউন্সিলের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে যৌননিপীড়নের মামলা করা হয়েছে। এর আগে মামলা করার জন্য দুইদিন প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরছি। কিন্তু মামলা নেওয়া হয়নি। মামলা করার পরে কাউন্সিলের লোকজন আমাদের হুমকি ধামকি দিচ্ছে।

এ বিষয়ে কথা বলতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জন দাসকে একাধিক বার মোবাইলে কল দিলেও তিনি সাড়া দেননি। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জাআ/এমকেএ/টিএএস