হত্যার আগে জেগে উঠে ছোট বোন, তওবা পড়তে বলেন মেহজাবিন

ঢাকা, শুক্রবার   ০৬ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ২২ ১৪২৮,   ২৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

হত্যার আগে জেগে উঠে ছোট বোন, তওবা পড়তে বলেন মেহজাবিন

নিজস্ব প্রতিবেদক  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:২০ ২৫ জুন ২০২১   আপডেট: ০৯:২২ ২৫ জুন ২০২১

মেহজাবিন মুন, মা মৌসুমী ইসলাম ও জান্নাতুল মোহিনী। ছবি: সংগৃহীত

মেহজাবিন মুন, মা মৌসুমী ইসলাম ও জান্নাতুল মোহিনী। ছবি: সংগৃহীত

হত্যা করার আগে ছোট বোন জান্নাতুল ইসলাম মোহিনীকে নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন মেহজাবিন ইসলাম মুন। তার দাবি, ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অচেতন করার পর ছোট বোন জান্নাতুল ইসলাম মোহিনীকে হত্যার আগে তওবা পড়িয়েছিলেন তিনি। 

বৃহস্পতিবার চার দিনের রিমান্ড শেষে মেহজাবিনের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএমপি’র ওয়ারী বিভাগের উপ-কমিশনার শাহ ইফতেখার আহমেদ এসব কথা জানান।

তিনি বলেন, চার দিনের রিমান্ডে মেহজাবিন জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন ধরে মায়ের অনৈতিক কাজ নিয়ে জমতে থাকা ক্ষোভ, বাবার কাছে নালিশ করেও সমাধান না পাওয়া এবং নিজের বোনের সঙ্গে স্বামীর অনৈতিক সম্পর্ক নিয়ে তৈরি হওয়া ক্ষোভ থেকেই তাদের হত্যা করেছেন।

হত্যার বর্ণনা দিতে গিয়ে মেহজাবিন আরো জানিয়েছেন, ঘুমের ওষুধ খাওয়ানোর পর অচেতন হয়ে পড়া বাবা মাসুদ রান এবং মা মৌসুমী ইসলামকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার পর বোন জান্নাতুল ইসলাম মোহিনীকে হত্যা করতে গেলে তিনি জেগে উঠেন। এ সময় মেহজাবিন তাকে জানিয়ে দেন যে, তিনি তাকে হত্যা করবেন। সেজন্যে বোনকে তওবা পড়তে বলেন তিনি। তওবা পড়িয়ে তাকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত ১৯ জুন (শনিবার) সকালে কদমতলীর মুরাদপুর রজ্জব আলী সরদার রোডের পাঁচতলা বাড়ির দ্বিতীয়তলা থেকে মাসুদ রানা (৫০), তার স্ত্রী মৌসুমী ইসলাম (৪০) ও মেয়ে জান্নাতুল ইসলাম মোহিনীর (২০) মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। 

এ ঘটনায় মেহজাবিনকে গ্রেফতার করে চারদিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। রিমান্ড শেষে ২৪ জুন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর