মা-বাবা ও বোনকে হত্যার পর পুলিশকে ফোন দেয় মেহজাবিন

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৫ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ২১ ১৪২৮,   ২৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

মা-বাবা ও বোনকে হত্যার পর পুলিশকে ফোন দেয় মেহজাবিন

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৫৩ ১৯ জুন ২০২১   আপডেট: ১৫:৪৯ ১৯ জুন ২০২১

কদমতলী এলাকার একটি বাড়ি থেকে বাবা-মা ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত

কদমতলী এলাকার একটি বাড়ি থেকে বাবা-মা ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর কদমতলী এলাকার একটি বাড়ি থেকে একই পরিবারের তিনজনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। জানা গেছে, হত্যার পর পুলিশকে ফোন করে দায় স্বীকার করে পরিবারের আরেক সদস্য।

শনিবার সকালে রাজধানীর কদমতলীর মুরাদপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন ওয়ারী ডিভিশনের ডিসি শাহ ইফতেখার আহামেদ।

তিনি বলেন, নিহতরা হলেন মাসুদ রানা (৫০), তার স্ত্রী মৌসুমী ইসলাম (৪০) ও মেয়ে জান্নাতুল (২০)। কদমতলী মুরাদনগর এলাকায় একটি বাসায় মাসুদ রানা তার স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক মেয়ের জামাইকে নিয়ে বাস করতেন।

আরও পড়ুন: ‘স্বামীকে জোর করে চা খাইয়ে নিজের বাবা-মা-বোনকে খুন?’, প্রশ্ন পুলিশের

মৌসুমীর আরেক মেয়ে মেহজাবিন (৩০) ও তার স্বামী শফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মেহজাবিনকে গ্রেফতারের কথা জানালেও এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে চাননি ওসি। তবে, পুলিশকে ফোন দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শাহ ইফতেখার আহামেদ বলেন, এ ঘটনায় সংকটাপন্ন অবস্থায় তার অপর মেয়ে মেহজাবিন মুনের স্বামী শফিকুল ইসলামকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মুনকে আটক করেছে পুলিশ। আটক হওয়া মুন নিহত দম্পতির সন্তান বলে জানা গেছে।

এসব তথ্য নিশ্চিত করে কদমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জামাল উদ্দিন বলেন, সকালে মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়েছে। 

মাসুদ রানা বা পরিবারের অন্য সদস্যরা কী করেন, সে বিষয়েও কিছু তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে