খিলক্ষেতে পুলিশের সঙ্গে গোলাগুলি, নিহত ২

ঢাকা, রোববার   ১৩ জুন ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪২৮,   ০১ জ্বিলকদ ১৪৪২

খিলক্ষেতে পুলিশের সঙ্গে গোলাগুলি, নিহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:০৩ ১৮ মে ২০২১  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর খিলক্ষেত এলাকায় পুলিশের সঙ্গে গোলাগুলিতে এনামুল ও রাসেল নামে দুই ডাকাত নিহত হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ২ জনকে হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়।

সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে খিলক্ষেত এলাকায় কাওলায় ডিবি পুলিশের অভিযানকালে এ ঘটনা ঘটে। 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত ২টার দিকে ডিবি পুলিশের দুটি দল পূর্বাচলগামী ফ্লাইওভার ও কাওলা এলাকার সড়কে চেকপোস্ট বসিয়েছিল। এ সময় ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়া সবুজ রঙের একটি সিএনজিতে কয়েকজন যাচ্ছিল। তল্লাশির জন্য সেটিকে থামার ইশারা করলে তারা সিগন্যাল অমান্য করে এবং দ্রুত গতিতে কাওলার দিকে পালিয়ে যেতে থাকে। 

উদ্ধারকৃত সরঞ্জাম

বিষয়টি ডিবির প্রথম দলটি ওয়াকিটকিতে দ্বিতীয় দলকে সতর্ক করলে তারা রাস্তা বন্ধ করে দেয় ও সিএনজিকে ধাওয়া করতে থাকে। প্রথম দলটিও সিএনজির পিছু পিছু ধাওয়া করছিল। এক পর্যায়ে সিএনজি ও তার যাত্রীরা ডিবির দুই দলের মধ্যে পড়ে যায়। এ সময় হঠাৎ সিএনজি থেকে বের হয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকে তারা। পুলিশও পাল্টা গুলি করে। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুইজনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া সেখান থেকে নয়ন ও ইয়ামিন নামে দুইজনকে আটক করা হয়। 

আটককৃত নয়ন ও ইয়ামিন

ডিএমপির গুলশান গোয়েন্দা বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মশিউর রহমান বলেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি সিএনজি অটোরিকশা, একটি বিদেশি পিস্তল, দুই রাউন্ড গুলি ভর্তি একটি ম্যাগাজিন, কাঠের বাটযুক্ত একটি পুরানো ধারালো ছুরি, দুইটি টাইগার বাম, একটি সবুজ রঙের গামছা, নয়টি স্মার্ট এবং বাটন মোবাইল, ১৬ পিচ ইয়াবা, একটি লাইটার এবং নগদ ৫০০০ টাকা উদ্ধার করা হয়। 

মশিউর রহমান বলেন, আটককৃত নয়ন এবং ইয়ামিন গামছা ও মলম দিয়ে মানুষের সর্বস্ব কেড়ে নিত। ভিকটিম জোরাজুরি করলে তাকে ফাঁস দিয়ে হত্যা করে ফেলে দিত। পুলিশ বা বিরোধী সন্ত্রাসী গ্রুপের আক্রমণের ভয়ে তারা সিএনজিতেই আগ্নেয়াস্ত্র বহন করতো। আটক ও নিহতরা সবাই ছিনতাই, ডাকাতি, হত্যা এবং মাদকের একাধিক মামলার আসামি। তারা নিজেরাও মাদকাসক্ত। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ