গৃহবধূকে হত্যার পর আগুনে পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ

ঢাকা, সোমবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৪ ১৪২৭,   ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

গৃহবধূকে হত্যার পর আগুনে পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:২৭ ৩০ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ০০:৪২ ৩০ নভেম্বর ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

রাজধানীর কাফরুলে সীমা আক্তার নামে এক গৃহবধূকে হত্যার পর পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

রোববার দুপুরে বাইশটেক ইমাম নগরের একটি বাসা থেকে সীমার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়।

কাফরুল থানার ওসি সেলিমুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সিমা আক্তারের শরীরে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তাকে ছুরি দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে হত্যা করা হতে পারে। পরে আগুনে পুড়িয়ে দেয়া হয়। তবে ময়নাতদন্তের পর হত্যাকাণ্ডটি কীভাবে ঘটেছে তা জানা যাবে। 

কাফরুল থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, তাকে প্রথমে উপর্যুপরি ছুরিঘাতে হত্যা করে ও পরে আগুনে পুড়িয়ে দেয়া হয়। সিমা আক্তারের সৎ ছেলে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত কিনা তা নিয়ে সন্দেহ করছে পুলিশ।

পরিবার সূত্র জানায়, এক বছর আগে সিমা আক্তারকে বিয়ে করেন শাহজাহান সিকদার। তিনি পেশায় কার্টুন ব্যবসায়ী। পল্লবীর ফ্ল্যাটে শাহজাহান-সীমার সঙ্গে শাহজাহানের আগের ঘরের সন্তান ও তার (সন্তান) স্ত্রী থাকেন। প্রতিদিনের মতো শাহজাহান কর্মস্থলে চলে যান। ছেলে ও স্ত্রী বাসায় ছিলেন। তদন্তের স্বার্থে ছেলে ও তার স্ত্রীর নাম জানায়নি পুলিশ।

পুলিশের ধারণা, শাহজাহান পেশায় একজন ব্যবসায়ী। অনেক স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ও অর্থ সম্পদ রয়েছে তার। শাজাহানের আগের ঘরের সন্তান মূলত এ কারণেই সিমাকে মেনে নিতে পারছিল না। পরে তাকে হত্যা করার পর লাশ পুড়িয়ে দেয়া হতে পারে। তদন্তের পরই হত্যার প্রকৃত কারণ বেরিয়ে আসবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ