প্রতারণার টাকায় বিলাসী জীবন, প্রতারকের মুখে কৌশলের বর্ণনা

ঢাকা, সোমবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৪ ১৪২৭,   ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

প্রতারণার টাকায় বিলাসী জীবন, প্রতারকের মুখে কৌশলের বর্ণনা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৫৮ ২৯ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৯:২৫ ২৯ নভেম্বর ২০২০

গ্রেফতার বিনইয়ামিন ও তার সহযোগী- ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গ্রেফতার বিনইয়ামিন ও তার সহযোগী- ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ময়মনসিংহের ত্রিশাল থেকে অভিনব কৌশলে প্রতারণা নিয়ন্ত্রণ করে একটি প্রতারক চক্র। তাদের মূল টার্গেট হচ্ছেন অভিভাবকরা। আর প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়া টাকা দিয়ে বিলাসী জীবনযাপন করছিল প্রতারক চক্রের সব সদস্যরা। সম্প্রতি পুলিশের কাছে আটক চক্রের দুই সদস্য প্রতারণার সব তথ্য ফাঁস করে দিয়েছে।

পুলিশ জানায়, প্রতারকরা ময়মনসিংহের ত্রিশাল থেকে অভিনব কৌশলের মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নিত। এতে ব্যবহার করতো মোবাইল অপারেটরদের পুরনো সিরিজের নম্বর। এরা কুকর্মের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক বা গ্রেফতার এড়াতে ব্যবহার করতো সিসি ক্যামেরা।

প্রতারণার কৌশল সম্পর্কে এক প্রতারক জানায়, প্রথমে আমরা মধ্যবয়সী একজনকে কল দেই। কল রিসিভ করলেই বলি আপনার ছেলের একটি সমস্যা হয়েছে। সে আমার একটি মোবাইল হাত থেকে ফেলে ভেঙে দিয়েছে। এখন এর ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। এর পরে কণ্ঠ নকল করে আমি বলি, আব্বা ওনাকে টাকা দিয়ে দাও। এরপর আমার কাছে টাকা চলে আসে।

এটা একেবারে নতুন কৌশল। এভাবে মানুষের কাছ থেকে সহজে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে ময়মনসিংহের বিনইয়ামিন। পদ্ধতি খুব অভিনব। প্রতারণায় মোবাইল ফোন অপারেটরদের পুরনো সিরিজের নম্বরগুলো ব্যবহার করা হয়। প্রতারকরা ধারণার উপর অভিভাবকদের ফোন দেয়। কেউ খপ্পরে পড়ে। কেউ আবার বুঝতে পেরে ফোন কেটে দেয়।

সম্প্রতি অভিনব প্রতারণার শিকার হয়ে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করেছিলেন এক ভুক্তভোগী। তার ছেলেকে আটকে রাখার কথা বলে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়া হয়েছিল টাকা। এভাবে বহু অভিযোগ আসার পর বিনইয়ামিন ও তার এক সহযোগীকে ময়মনসিংহের ত্রিশাল থেকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ।

পুলিশ আরো জানায়, বিনইয়ামিনের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলাসহ চারটি মামলা রয়েছে। গ্রেফতার এড়াতে সে বাড়ির চারপাশে সিসি ক্যামেরা ও ভেতরে গোপন ক্যামেরা বসিয়েছিল।

ডিবির সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মীর মোদদাছছের হোসেন বলেন, যে প্রতারক চক্রকে আমরা গ্রেফতার করেছি, তারা পরের টাকায় বিলাসী জীবনযাপন করেন। তারা মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে নিজের ঘরের অসবাবপত্রও কিনেছেন।

তিনি আরো বলেন, ২০১৬ সাল থেকে অভিনব প্রতারণা করে আসছিল বিনইয়ামিন। ৩০ বছর বয়সী বিনইয়ামিন বিয়ে করেছেন ৯টি। এ ছাড়া অসংখ্য পরকীয়া প্রেমের সঙ্গে জড়িত।

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/এমকেএ