দশম দিনে মেলায় নেই দর্শানার্থীদের ভিড় 

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৮,   ০৫ শাওয়াল ১৪৪২

দশম দিনে মেলায় নেই দর্শানার্থীদের ভিড় 

শোয়াইব আহমেদ, ঢাবি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৩৩ ২৭ মার্চ ২০২১   আপডেট: ১৯:৪২ ২৭ মার্চ ২০২১

বিকেলেও তেমন বইপ্রেমীদের দেখা মেলেনি

বিকেলেও তেমন বইপ্রেমীদের দেখা মেলেনি

দশম দিনে এসে ক্রেতাদের ভিড় নেই বললেই চলে অমর একুশে বইমেলা ২০২১ এ। সাপ্তাহিক ছুটির দিন শনিবারে যেখানে মেলা প্রাঙ্গণ লোকে লোকারণ্য থাকার কথা সেই তুলনায় আজ মেলা প্রাঙ্গণে বিক্রেতাদের তেমন উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়নি। স্টলেও বিক্রেতাদের তেমন ব্যস্ততা দেখা যায়নি। তাই গতকাল শুক্রবার ক্রেতাদের সরব উপস্থিতি থাকলেও আজ শনিবার যেনো মেলা একেবারেই প্রাণহীন। 

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বইমেলার প্রবেশ মুখে নিরাপত্তাকর্মীদের কড়া নজরদারি। মাস্ক পরিধান পরা আছে কি-না, শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা শেষে নিরাপত্তা কর্মীদের তল্লাশি শেষে প্রবেশ করতে হয় মেলা প্রাঙ্গণে। 

ছুটির দিনেও মেলায় ভিড় কমের কারণ জিজ্ঞেস করলে শনিবার বিকেলে ‘ডেইলি স্টার স্টল’র বিক্রয় প্রতিনিধি তৌফিক মেজবাহ ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, গতকাল সারাদেশে যে বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটেছে সে জন্য মানুষ একদিকে আতঙ্কিত পাশাপাশি বিদেশি অতিথিদের জন্য আজকে বিভিন্ন রুটে যান চলাচল  সীমিত থাকায় মানুষ তেমন ভিড়ছে না মেলা প্রাঙ্গণে। তবে সন্ধ্যার পর মানুষ আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। 

বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণে মানুষ আনাগোনার চিত্র সকালে একেবারেই না থাকার মতো বিকেলে খুব অল্প কিছু মানুষের আনাগোনা নিয়েই কিছুটা জমে মেলা। 

আজ মেলা শুরু হয় সকাল ১১টায় যা চলবে রাত ৯টা পর্যন্ত। কিন্তু সকাল থেকে বিকেল গড়ালেও যখন তেমন মানুষের আনাগোনা দেখতে পাননি তখন হতাশ হয়ে স্টলের মালিকরা জানান, সকালে মানুষ কম আসায় আমরা তেমন হতাশ হইনি ভেবেছিলাম বিকেলে দর্শনার্থীরা আসবে কিন্তু বিকেলেও তেমন বইপ্রেমীদের দেখা মেলেনি। 

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণের কাছাকাছি এলাকা চানখারপুল থেকে মেলায় এসেছেন জাকির হোসেন ও তার স্ত্রী। মেলায় তেমন মানুষ না দেখে তারা কিছুটা হতাশ হলেও কম মানুষ আসার ভালো দিকও দেখছেন তারা। তারা বলেন, করোনার মধ্যে কম মানুষের আনাগোনা থাকলে স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টা সহজে মেনে চলা সম্ভব হয়। মানুষের ভিড় না থাকায় খোলা মাঠে হাঁটাচলা করতেও ভালো লাগছে আর স্টলেও তেমন ভিড় না থাকায় সময় নিয়ে বই দেখতে পারছি। 

ঘুরতে আসা আরেক তরুণ ছাত্র ইকরাম হোসেন নিউমার্কেট এলাকা থেকে এসেছেন মেলায়। অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের এই শিক্ষার্থী বলেন, করোনা মহামারির সময়ে এবার যে বইমেলা হচ্ছে তাতেই শুকরিয়া। আগেও অনেকবার বইমেলায় আসা হয়েছে। এবার অনেক জায়গা জুড়ে আয়োজন করা হয়েছে পাশাপাশি মানুষও কম তাই ভালোই লাগছে। 

কেমন বই কিনেছেন সেটা জানিয়ে ইকরাম বলেন, একটা উপন্যাস কিনেছি। আরও কিছু বই কিনবো দেখেশুনে। তেমন প্রস্তুতি নিয়ে আসা হয়নি এমনিতেই ঘুরতে আসা। যেহেতু কাছাকাছি থাকি তাই সামনে আরও আসা হবে। আস্তে আস্তে বই কিনবো। 

মেলায় বিকেল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী: বাংলাদেশের সংবিধানের মূলনীতি’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জালাল ফিরোজ। আলোচনায় অন্যান্যের মধ্যে অংশগ্রহণ করেন আশফাক হোসেন এবং সাব্বির আহমেদ। সভাপতিত্ব করেন মো. মইনুল কবির।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম