বঙ্গবন্ধুর শক্তি ও অনুপ্রেরণার উৎস ছিলেন বঙ্গমাতা: হানিফ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২,   ১৫ আশ্বিন ১৪২৯,   ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

বঙ্গবন্ধুর শক্তি ও অনুপ্রেরণার উৎস ছিলেন বঙ্গমাতা: হানিফ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০১:৫৩ ৯ আগস্ট ২০২২   আপডেট: ১৮:১৬ ৯ আগস্ট ২০২২

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ- ফাইল ফটো

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ- ফাইল ফটো

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শক্তি ও অনুপ্রেরণার উৎস। সুখে-দুঃখে সবসময় পাশে থেকে বঙ্গবন্ধুকে অনুপ্রাণিত করেছেন।

সোমবার রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব মিলনায়তনে ‘বাঙালির গণতান্ত্রিক আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বঙ্গমাতার ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটি।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, বঙ্গবন্ধু রাজনীতি করেছিলেন দেশের জনগণের জন্য। বেগম মুজিবের কর্মকাণ্ডও ছিল এদেশের মানুষের জন্য। তিনি ছায়ার মতো বঙ্গবন্ধুর পাশে ছিলেন। তিনি যদি বঙ্গবন্ধুকে সাহায্য না করতেন, অনুপ্রেরণা না দিতেন তাহলে বঙ্গবন্ধুর পক্ষে এত ত্যাগ স্বীকার করা সম্ভব ছিল না।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব ছিলেন একজন সহজ, সরল নারী। বেগম মুজিবের অসামান্য বিচক্ষণতা ছিল। বঙ্গবন্ধুর গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে তিনি অসামান্য ভূমিকা রেখেছেন। রাজনীতির সঙ্গে সরাসরি জড়িত ছিলেন না; কিন্তু নেপথ্যে থেকে সহযোগিতা করেছেন।

হানিফ বলেন, দেশের স্বাধীনতা লাভের পেছনে সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে বেগম মুজিবের ঐতিহাসিক ভূমিকা ছিল। বঙ্গবন্ধু জাতির পিতা হওয়ার পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান ছিল মহীয়সী নারী বঙ্গমাতার। তিনি জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর পাশে ছিলেন।

আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. খন্দকার বজলুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- ইতিহাসবিদ ও বঙ্গবন্ধু চেয়ার অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও কলাম লেখক সুভাষ সিংহ রায় প্রমুখ। সভা সঞ্চালনা করেন আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে

English HighlightsREAD MORE »