বিএনপিতে আবারো সক্রিয় সংস্কারপন্থীরা

ঢাকা, সোমবার   ১৮ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৩ ১৪২৮,   ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বিএনপিতে আবারো সক্রিয় সংস্কারপন্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:১০ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৯:৪৫ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

খালেদা-তারেককে মাইনাস করে ‘লোকাল কমান্ডার’ হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স। তার পাশে রয়েছেন মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি আবদুস সালাম।

এ দুজনই বিএনপিতে সংস্কারপন্থী নেতা হিসেবে পরিচিত। এক এগারোর সময় দলের তৎকালীন মহাসচিব প্রয়াত আবদুল মান্নান ভূঁইয়ার নেতৃত্বে খালেদাকে মাইনাস করতে চেয়েছিলেন প্রিন্স, আবদুস সালামসহ অসংখ্য বিএনপি নেতা।

এরপর থেকে দুভাগে বিভক্ত বিএনপি- একটি সংস্কারপন্থী এবং অন্যটি মূলধারা। সেই সংস্কারপন্থীরাই এবার বিএনপির শীর্ষ দুই নেতা খালেদা-তারেককে মাইনাস করে দলের কর্তৃত্ব নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন।

জানা যায়, এক এগারোর পরবর্তী সময়ে হাইকমান্ডের নির্দেশমতো কাজ করার অঙ্গীকার করে দলে ফিরে আবারো সুযোগ খুঁজতে থাকেন সংস্কারপন্থীদের বেশ কয়েকজন। এদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন ময়মনসিংহ বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং কেন্দ্রীয় দফতরের দায়িত্বে থাকা সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের একটি বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, এমরান সালেহ প্রিন্স দলের অনেক সিনিয়র নেতাকে টপকে কীভাবে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দায়িত্ব পেলেন, এ নিয়ে অনেক নেতাকর্মীর মধ্যে সন্দেহ রয়েছে। ইদানীং তিনি দেশের রাজনীতিতে বিএনপির ‘লোকাল কমান্ডার’ নির্ধারণে উঠেপড়ে লেগেছেন।

সূত্রটি আরো জানায়, কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দাফতরিক দায়িত্বে থেকে বিএনপির একটি সংস্কারপন্থী দল নিয়ে বিরোধী দল হিসেবে সংসদে যেতে ষড়যন্ত্র শুরু করেছেন এমরান সালেহ প্রিন্স। এরই মধ্যে দলের নির্বাহী কমিটির নেতাদের সঙ্গে তারেক রহমানের বৈঠকেও তিনি এ বিষয়টি আলোচনায় আনেন। তিনি লন্ডনে পলাতক দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে বুঝিয়েছেন যে, নির্বাচনকে সামনে রেখে আন্দোলনের জন্য বিএনপির রাজনীতিতে একজন লোকাল কমান্ডার দরকার। এর জন্য তিনিই সবচেয়ে যোগ্য। এসময় প্রিন্সকে সাপোর্ট দেন মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি আবদুস সালাম।

বিএনপির মূলধারার এক ভাইস চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চাইলে পরিচয় গোপন রাখার শর্তে বলেন, বিভক্ত বিএনপির অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতেই চলছে গোপনীয়তা। দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকায় দলের অনেক নেতাই এখন চান, আসন্ন নির্বাচনে ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন না দেখে, বিরোধী দল হিসেবে সংসদে যেতে।

এদিকে প্রিন্সের এ প্রস্তাবে তারেক সরাসরি কিছু না বললেও ইতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করেছেন বলে দাবি করেছেন বিএনপির এ ভাইস চেয়ারম্যান।

দলের এ ভাইস চেয়ারম্যান আরো বলেন, এ প্রস্তাবে যদি তারেক রহমান রাজি হন, তাহলে তার দেশে ফেরা তো হবেই না, বরং সংস্কারপন্থীরা বিএনপি থেকে তার নাম মুছে ফেলবেন। কারণ বিএনপির পরীক্ষিত নেতা নন প্রিন্স। এর আগে খালেদাকে দেশছাড়া করার চক্রান্তও করেছিলেন তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর/এইচএন