রাজনৈতিক ইস্যু নেই, ধীরে ধীরে নিস্তব্ধ হয়ে পড়ছে বিএনপি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৫ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ২১ ১৪২৮,   ২৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

রাজনৈতিক ইস্যু নেই, ধীরে ধীরে নিস্তব্ধ হয়ে পড়ছে বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:২৭ ১৩ জুন ২০২১   আপডেট: ১৪:৫৬ ১৩ জুন ২০২১

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

রাজনৈতিক কোনো ইস্যু নেই, এছাড়া আন্দোলন করার শক্তিটুকুও হারিয়ে ফেলেছে বিএনপি। এখন নিস্তব্ধ-নিথর হয়ে পড়ে আছে দলটি। কিন্তু এর মধ্যেও বিএনপির ভেতরে ভেতরে উত্তাপ ছড়ানো হচ্ছে এবং এ উত্তাপের মূল কারণ কমিটি বাণিজ্য।

বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় এবং ঢাকা মহানগরীতেও কমিটির জন্য অবাধে হচ্ছে টাকার লেনদেন। আর এসব টাকার লেনদেন করা হচ্ছে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নামে। কেউ কেউ দাবি করেছেন, তারা সরাসরি তারেক জিয়াকে টাকা দিয়েছেন। তবে টাকা দিয়েও তারা কমিটিতে ঠাঁই পাননি। সাম্প্রতিক সময়ে বেশি উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে ঢাকা মহানগরী কমিটি নিয়ে।

ঢাকা মহানগরী কমিটির পুনর্বিন্যাস করা হবে এমন কথাবার্তা চলছিল দীর্ঘদিন ধরেই। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। ঢাকা মহানগরের কমিটির ক্ষেত্রে যারা আন্দোলন-সংগ্রাম করেছেন, দলের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছেন, তাদের বাদ দিয়ে যারা টাকা-পয়সা দিতে পারছেন তাদেরকেই কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আর এসব বাণিজ্য সরাসরি করছেন তারেক জিয়া।

বিএনপির আন্দোলন-সংগ্রামে থাকা একজন নেতা এবার ঢাকার একটি আসন থেকে মনোনয়ন চেয়েও শেষ পর্যন্ত পাননি। তিনি অভিযোগ করেন, তারেক জিয়া মহানগরীর বড় পদের জন্য এক কোটি টাকা পর্যন্ত গ্রহণ করছেন। লন্ডনে টাকা পৌঁছানোর পরই তাকে কমিটিতে রাখা হবে কি হবে না, সেটি বলে দেয়া হচ্ছে। আর ঢাকা মহানগরীতে এ কমিটি বাণিজ্যের বিষয়টা এখন এতটাই প্রকাশ্য যে, বিএনপির লোকজন ধার-দেনা করে টাকা জোগাড় করতে চাইছেন কমিটিতে থাকার জন্য। শুধু ঢাকা মহানগরীর কমিটি নয় বরং সারাদেশে এমনকি অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের কমিটি গঠন নিয়েও বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে এবং এ অভিযোগগুলো উঠছে তারেক জিয়ার বিরুদ্ধে। শুধু তারেক জিয়া একা নয়, বিএনপির আরো কয়েকজন নেতাও কমিটি বাণিজ্যের সঙ্গে যুক্ত।

বিএনপির যেসব নেতার বিরুদ্ধে টাকা তোলার অভিযোগ উঠেছে, এদের মধ্যে রয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, বিএনপি আরেক স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তারা দল চালানোর কথা বলে বা বিভিন্ন ইস্যুতে কর্মীদের কাছ থেকে টাকা নিচ্ছেন।

বিএনপির তৃণমূলের এক নেতা বলেন, গত ১৪ বছর ধরে বিএনপি ক্ষমতার বাইরে। দলের নেতাকর্মীদের অবস্থা এমনিতেই খারাপ। তারা ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারছেন না। এ মুহূর্তে কমিটিতে থাকার জন্য টাকা চাওয়া হচ্ছে এবং টাকা পেলেই কমিটিতে রাখা হবে, টাকা না পেলে কমিটিতে রাখা হবে না। এ রকম কথাবার্তা বলা হচ্ছে।

সাম্প্রতিক সময়ে ঢাকা মহানগরীর কমিটি গঠন করার জন্য অন্তত ২০ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন বিএনপির একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা।

একই পদের বিপরীতে তিন-চারজনের কাছ থেকে টাকা নেয়া হচ্ছে, এমন অভিযোগও রয়েছে। আর এসব নিয়ে বিএনপিতে এখন তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএএম/জেডআর/এইচএন