হেফাজত নেতাদের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে এলো মামুনুলকাণ্ডের চাঞ্চল্যকর তথ্য

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৬ মে ২০২১,   বৈশাখ ২৩ ১৪২৮,   ২৩ রমজান ১৪৪২

হেফাজত নেতাদের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে এলো মামুনুলকাণ্ডের চাঞ্চল্যকর তথ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:১০ ১৬ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ২১:১২ ১৬ এপ্রিল ২০২১

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে রয়েল রিসোর্টে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের নারী কাণ্ডে হতাশ দলটির শীর্ষ নেতারা। সম্প্রতি কয়েকজন হেফাজত নেতাদের জিজ্ঞাসাবাদের পর সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের হতাশাসহ নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

গ্রেফতার হেফাজত নেতাদের বরাত দিয়ে পুলিশ বলছে, মামুনুল হকের নৈতিক স্খলনের বিষয়টি স্বীকার করে হতাশা ব্যক্ত করেছেন হেফাজতে ইসলামের শীর্ষ নেতারা। মামুনুল হককে বহিষ্কারের প্রস্তাব করলেও সংগঠনটির আমির জুনায়েদ বাবুনগরী সেই প্রস্তাব নাকচ করে দেন।

পুলিশ বলছে, হেফাজতের সাম্প্রতিক তাণ্ডবে জামায়াত-শিবিরসহ জঙ্গিদের সম্পৃক্ততাও পাওয়া গেছে।

পুলিশের হাতে এ পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছেন- হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদী, হেফাজতের সহকারী মহাসচিব মুফতি শাখাওয়াত হোসাইন রাজী, সাবেক প্রচার সম্পাদক মুফতি ফখরুল ইসলাম, ঢাকা মহানগর কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মাওলানা মঞ্জরুল ইসলাম আফেন্দি এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-প্রচার সম্পাদক মুফতি শরিফ উল্লাহ।

জানা গেছে, মামুনুল হকের রিসোর্টকাণ্ডের পর গত রোববার হাটহাজারী মাদরাসায় জরুরি বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা। বৈঠকে মামুনুল হককে সংগঠন থেকে তাকে বহিষ্কারের প্রস্তাব দেন আজিজুল হক ইসলামাবাদী। প্রস্তাবটি নাকচ করে দেন সংগঠনটির আমির জুনায়েদ বাবুনগরী। গ্রেফতার হতে পারেন বিধায় এ সিদ্ধান্ত হতে সরে আসা হয়। মামুনুলের গ্রেফতার এড়াতে মাদরাসা খোলা রাখার সিদ্ধান্ত হয়।

রিসোর্টকাণ্ড তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি করা হয়। হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মাওলানা হাফেজ তাজুল ইসলাম, সহকারী মহাসচিব শাখাওয়াত হোসাইন রাজী ও হাটহাজারী মাদরাসার জ্যেষ্ঠ শিক্ষক ড. মাওলানা নুরুল আফসার আজহারীকে কমিটিতে রাখা হয়।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কমিশনার মাহবুব আলম বলেন, মামুনুলের বিষয়ে হেফাজত হতাশ। তবে হেফাজতের সঙ্গে আরো অনেকেই জড়িত। শুধু হেফাজত নয়, সাম্প্রতিক সহিংসতায় জামায়াতসহ জঙ্গিদেরও সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/টিআরএইচ/আরএইচ