ত্যাগীরাই দলের দুঃসময়ে আলো জ্বালায়: ওবায়দুল কাদের 

ঢাকা, রোববার   ০১ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ১৭ ১৪২৮,   ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

ত্যাগীরাই দলের দুঃসময়ে আলো জ্বালায়: ওবায়দুল কাদের 

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:০৯ ২ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৯:১৫ ২ এপ্রিল ২০২১

দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ব্যক্তিরা। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ব্যক্তিরা। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ত্যাগী কর্মীরাই আওয়ামী লীগের প্রাণ, এরাই দলের পরীক্ষিত কর্মী। দলের দুঃসময়ে এরাই আলো জ্বালায়।

শুক্রবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মো. শাজাহান এর আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিলে অনলাইনে যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন তিনি। 

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, আজ রাজনীতিতে সৌজন্যবোধ, পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ, আস্থা ও বিশ্বাস হারিয়ে গেছে। তবে আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা মূল্যবোধের রাজনীতির চর্চা করে যাচ্ছেন। 

সেতুমন্ত্রী বলেন, কিছু লোক আছে সামনাসামনি এক কথা, পেছনে গিয়ে আরেক কথা বলে। দলের জন্য নিবেদিত কর্মী যারা, তারা কখনো এসব কাজ করে না। যারা এসব কাজ করে তারা ত্যাগী নয়, সুবিধাবাদী। এক ধরনের বিশ্বাসঘাতক।

তিনি আরো বলেন, রাজনীতিতে যদি পারস্পরিক সম্পর্ক ও মূল্যবোধ না থাকে তাহলে সে রাজনীতি মানুষের জন্য নয়। এ মূল্যবোধের রাজনীতি বঙ্গবন্ধুর কাছে শিখেছি। তিনি আমাদের আদর্শের রাজনীতি শিখিয়ে গেছেন। রাজনীতির মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ ও আস্থা ফিরিয়ে আনতে শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছেন। 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, মো. শাজাহান আওয়ামী লীগের কর্মচারী ছিলেন না, কর্মী ছিলেন। তিনি সব সময় নেত্রীর সঙ্গে কথা বলতেন। তার জন্য কষ্ট হয়। শাজাহানের মতো কর্মীরাই আওয়ামী লীগের প্রাণ। এখনো তৃণমূলে অনেক শাজাহান আছে, তাদের তুলে আনতে হবে। এরাই দলের বিপদের সময় আলো জ্বালায়। কিন্তু সুবিধাদীরা দলের দুঃসময় থাকবে না। আমরা ত্যাগী কর্মী চাই, সুবিধাবাদীদের চাই না।  

করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় সবাইকে সর্তক করে ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনার সংক্রমণ বেড়ে গেছে, মৃত্যুর হারও বেড়েছে। এ থেকে বুঝতে হবে যে, পরিস্থিতি খারাপ দিকে যাচ্ছে। তাই সবাইকে সচেতন হয়ে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে। যারা ভ্যাকসিন নিয়েছেন তাদেরও সচেতন হতে হবে। কোনো সামাজিক সমাবেশ করা যাবে না। সব কার্যক্রম ঘরে বসে চালাতে হবে। আওয়ামী লীগের সব নেতাকর্মী সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবে এবং অন্যাকে মানতে সাহায্য করবে। 

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশবাসীর মধ্যে করোনার সব ধরনের প্রতিরোধক উপকরণ বিতরণ করা হবে। করোনার মধ্যে এটাই হলো আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক কার্যক্রম।

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগের সব সংগঠনের নেতাকর্মী যার যার সার্মথ অনুযায়ী করোনার মধ্যে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সাহায্য-সহযোগিতা করবেন এবং করোনা প্রতিরোধক সামগ্রী বিতরণ করবেন।

দোয়া মাহফিলে আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, উপ-দফতর সম্পাদক সায়েম খান, কার্যনিবাহী সদস্য শামীম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী মোর্শেদ কামালসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জাআ/জেডআর