শীর্ষ নেতাদের দলবিরোধী মন্তব্যে হতাশ বিএনপির তৃণমূল

ঢাকা, শনিবার   ২৪ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৯ ১৪২৭,   ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

শীর্ষ নেতাদের দলবিরোধী মন্তব্যে হতাশ বিএনপির তৃণমূল

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৫১ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

বিগত প্রায় দেড় যুগের বেশি সময়ে নানা সংকটে জর্জরিত বিএনপি। দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার কারাবাস, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়, নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব এবং সিনিয়র নেতাদের দলবিরোধী কঠোর সমালোচনায় বিপর্যস্ত দলটির তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।

জানা গেছে, স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, হাফিজ উদ্দিন আহমেদের মতো শীর্ষ নেতাদের দলবিরোধী মন্তব্যের কারণে একদিকে যেমন বিব্রত দলের হাইকমান্ড। অন্যদিকে তৃণমূলে নেতিবাচক প্রভাব পড়ায়, কর্মীরা আরো দলবিমুখ হয়ে পড়ছেন। 

দলীয় সূত্রমতে, গত ১০ বছরে বিএনপির একাধিক শীর্ষ নেতারা বিরোধপূর্ণ মন্তব্য করে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন। বিশেষ করে স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের মতো নেতারা দলের নেতৃত্ব, আন্দোলন নিয়ে ব্যঙ্গ করে বিভিন্ন সময়ে মন্তব্য করে দলের ক্ষতি করছেন। 

দলীয় সংকট দূর করতে গিয়ে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় নেতিবাচক কটূক্তি করে নেতাকর্মীদের মনোবল দুর্বল করে তুলছেন। ২ সেপ্টেম্বর গয়েশ্বর নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে কটূক্তি করে বলেন, ‘আন্দোলন চাই, সময়মত আমি নাই। কর্মীরা সাবধানে থাইকো। টেলিফোন বন্ধ।’ এভাবে হয় না। আগে ঈমান ঠিক করেন। তারপরে আন্দোলনের কথা বলেন।’ এছাড়া ২৩ সেপ্টেম্বর গয়েশ্বর বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্যে ব্যঙ্গ করে বলেন, ‘আমরা শুধু পদে ব্যস্ত, কমিটিতে ব্যস্ত আর কথায় ব্যস্ত। বেশির ভাগ বিএনপি নেতা-কর্মীরা পদের জন্য রাজনীতি করে।’ কর্মীদের পদ-পদবির দিকে না তাকিয়ে আন্দোলনের জন্য সবাইকে সংগঠিত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের এমন দলবিরোধী কটূক্তিমূলক মন্তব্যের কারণে তৃণমূলে নেতিবাচক বার্তা যাচ্ছে বলে মনে করছেন বিএনপির নীতিনির্ধারকরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলটির নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের এক নেতা বলেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ঠোঁটকাটা স্বভাবের মানুষ। যারা অতিরিক্ত কথা বলে, তারা উল্টাপাল্টা কথা বলেন। গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের মতো অতিউৎসাহী নেতাদের কারণে তৃণমূলে ভুল বার্তা যায়। যার কারণে রাজপথে বিএনপি কর্মীদের দেখা পাওয়া যায় না। 

তিনি বলেন, গয়েশ্বরের মতো সিনিয়রদের কাছ থেকে এ আচরণগুলো আশা করা যায় না। তাকে সচেতন হতে হবে। বেশি কথা বললেই নেতা হওয়া যায় না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএএম/এমআরকে