বইমেলায় আসছে চবির চার শিক্ষার্থীর বই

ঢাকা, শুক্রবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ২ ১৪২৮,   ০৮ সফর ১৪৪৩

বইমেলায় আসছে চবির চার শিক্ষার্থীর বই

চবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৫২ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

২০২১ সালের বইমেলা উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চার তরুণের বই বেরিয়েছে

২০২১ সালের বইমেলা উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চার তরুণের বই বেরিয়েছে

২০২১ সালের বইমেলা উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চার তরুণের মৌলিক গ্রন্থ বেরিয়েছে। পাওয়া যাবে মার্চের বই মেলায়। বাংলা ভাষার জন্য ৫২-তে রক্ত দিয়েছিল তরুণরা। সেই তরুণদের অর্জিত ভাষাকে বাঁচিয়ে রাখতে, তাদের দেয়া রক্তের ভাষায় কথা বলতে, সেই ভাষাকে স্মরণীয় করে রাখতে বর্তমান তারুণ্যের প্রচেষ্টা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী হাসনিন তমার প্রথম উপন্যাস ‘নয়তো বকুল’। তরুণ প্রজন্মের চিন্তা ভাবনার প্রতিফলন আর লেখকের কল্পনাপ্রসূত ও কথা সাহিত্যের আলতো ছোঁয়ায় একাকার হয়ে গিয়েছে বইটিতে। 

বইটির প্রধান চরিত্রে ময়ূরাক্ষী নামের এক তরুণী। বড়বোন নবনী। একটি পরিবারকে ঘিরে পুরো উপন্যাস। বাবা মিজানুর আহমেদ, পরিবারের কর্তা। যিনি মনেপ্রাণে হুমায়ূন আহমেদের ভক্ত। একজন হুমায়ূনপ্রেমী জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে যেভাবে হুমায়ূন আহমেদকে ধরে রেখেছেন এই উপন্যাসে তা জানা যাবে অনেকটা। লেখক জানান ‘নয়তো বকুল’ তার প্রথম উপন্যাস। প্রকাশনা ‘পাললিক সৌরভ’ থেকে প্রকাশিত হয়েছে বইটি।

মাহবুব এ রহমান। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষার্থী এই তরুণ লেখালেখির ছাড়াও সাংবাদিকতা, সংগঠনের সাথেও জড়িত। এই লেখক জানালেন, ‘ভূত স্যার’ তার তৃতীয় বই। বইটি শিশু-কিশোর উপযোগী ভৌতিক গল্পের বই। তবে এই বইয়ে গতানুগতিকের বাইরে গিয়ে এমন কিছু গল্প রয়েছে, যা পড়ে শিশুরা আনন্দের পাশাপাশি শিখতে পারবে অনেক কিছু।

সম্পূর্ণ চাররঙা অলঙ্করণ সমৃদ্ধ এই বইয়ের প্রতিটি গল্প যেমন রোমাঞ্চ আর টানটান উত্তেজনায় ভরপুর। তেমনি  আছে চমৎকার শিক্ষানীয় কিছু ম্যাসেজ। গল্পগুলো শিশু-কিশোরদের মনকে করবে আন্দোলিত এবং যোগাবে চিন্তার খোরাক। অক্ষরবৃত্ত পাণ্ডুলিপি প্রতিযোগিতায় শিশুসাহিত্য বিভাগের নির্বাচিত পাণ্ডুলিপি হিসেবে বইটি প্রকাশ করছে অক্ষরবৃত্ত প্রকাশন বলে জানা যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স বিভাগের আরেক তরুণ আদিত্য সিংহ। ‘মোড়কে মোড়া রংতুলি’ নামের গল্পগ্রন্থটি মোট পাঁচটি গল্প নিয়ে প্রকাশিত হলো। লেখক জানান, বইটির অধিকাংশ গল্পই রোমান্টিক ধর্মী। প্রিয়জন হারানোর বেদনার ক্ষত মানুষের ছটফটানি কিছুটা অলৌকিকত্ব, ছোটোবেলায় দেয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষা, ভুল মানুষের জন্য সর্বস্বান্ত মানুষের কথা ইত্যাদি পাঁচমিশালী সংমিশ্রণ রয়েছে বইটিতে। বইটি বই মেলায় পাওয়া যাবে নন্দন বইঘর প্রকাশনীতে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী ও গল্পকার পলাশ চৌধুরীর রচিত গল্পগ্রন্থ ‘সিলমোহর’। তিনি বলেন, বিখ্যাত কথাসাহিত্যিক মানিক বন্দ্যোপাধ্যায় তার ‘কেন লিখি’ প্রবন্ধে বলেছিলেন, লেখা ছাড়া অন্য কোনো উপায়েই যে সব কথা জানানো যায় না, সেই কথাগুলো জানাবার জন্যই আমি লিখি।’

কেউ যদি আমাকে প্রশ্ন করে, আমি কেন লিখি? তার জবাবে আমি বলবো, ‘আমার মনের অভ্যন্তরে অনর্গল সঞ্চরণশীল বিক্ষিপ্ত ও বিচ্ছিন্ন কথাগুলোকে ক্রমান্বয়ে জোড়া লাগাতেই আমি লিখি। কখনো কখনো কারও প্রতি আমার নিঃস্বার্থ ভালোবাসা প্রকাশ কিংবা মনে অপরিসীম ক্ষোভ ও বেদনার যে যুগপৎ আলোড়ন উঠে, যা আমি মুখে বলতে পারি না- সেই কথাগুলো জানাবার জন্যই আমি লিখি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম