Exim Bank Ltd.
ঢাকা, মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর, ২০১৮, ৮ কার্তিক ১৪২৫

'কখনো খল চরিত্রে অভিনয় করিনি, করবোও না'

সঞ্জয় বসাক পার্থডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম
'কখনো খল চরিত্রে অভিনয় করিনি, করবোও না'
ছবি: সংগৃহীত

সাংবাদিকদের সঙ্গে যদিও তার সম্পর্কটা কখনোই ঠিক স্থির ছিল না। যেদিন মন খুলে কথা বলতে শুরু করেন, সেদিন প্রায় সব প্রশ্নেরই উত্তর দেন, আর যেদিন ইচ্ছা থাকে না, সেদিন আপাদমস্তক সহজ সরল প্রশ্নেও রেগে যান তিনি! বলছি সালমান খানের কথা, সবার কাছে ‘ভাইজান’ নামেই বেশি পরিচিত। পঞ্চাশ পেরোলেও দিব্যি অভিনয় করে চলেছেন তরুণ নায়কদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে। সম্প্রতি কয়েকটি সাক্ষাৎকারে জীবনের অনেক কিছুই খোলামেলা স্বীকার করেছেন। ডেইলি বাংলাদেশের পাঠকদের জন্য সেই সাক্ষাৎকারগুলোর চুম্বকাংশ দেয়া হলো।

‘রেস থ্রি’র সেলফিশ গানটি লিখেছেন। অনেকেই বলছেন নিজের অভিজ্ঞতাই ফুটিয়ে তুলেছেন গানটির মধ্য দিয়ে?

সালমান খান: গানটা পরিকল্পনা করে লিখিনি, ফ্লুক বলতে পারেন। সঙ্গীত পরিচালক বিশাল মিশ্র জিজ্ঞেস করেন কী ধরনের লিরিক্স চাই। লিরিক্স শেয়ার করতেই আমার লেখা থেকে তার পছন্দমতো অংশ নিয়েই গানটি তৈরি। যারা স্বার্থপর নন তারা উদার হয়ে সারা জীবন অন্যের জন্য কাজ করে যান। কিন্তু নিজের জন্যও যে কিন্তু সময়, কিছু স্মৃতি, কিছু অনুভব রাখা উচিত সেটিই বলা হয়েছে এই গানে।

পঞ্চাশ পেরোনোর পরও পর্দা কাঁপাচ্ছেন, রহস্য কী? ব্র্যান্ড সালমান খান তৈরি করতে কোন কোন জিনিস দরকার?

সালমান খান: সত্যিই জানি না এই প্রশ্নের কী উত্তর হতে পারে! এসব বিষয়ে কখনো ভাবি না। সম্ভবত দাদু থেকে শুরু করে নাতি-নাতনী, সকলেই আমার সিনেমার সঙ্গে নিজেদের মিল খুঁজে পায়। পারিবারিক সিনেমা তো আর কম করিনি! এছাড়া যখন আপনার বিরুদ্ধে একই কথা বারবার লেখা হবে, মানুষ কিছুটা হলেও কিছুটা অনুভব করতে শুরু করবে। নিজেদের মতামত পাল্টে খানিক হলেও সমর্থন করতে শুরু করবে। অনেক কিছুই আছে যা আমাকে ব্যক্তি হিসেবে বিকশিত হতে সাহায্য করেছে। বাসায়, স্কুলে, বোর্ডিংয়ে, বন্ধুমহলে প্রত্যেক জায়গায় কিছু না কিছু শিখেছি। সবসময়ই বয়সে বড়দের সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়ার চেষ্টা করি, তাদের থেকে নতুন জিনিস শেখার চেষ্টা করি।

যেমন?

সালমান খান: যেমন ধরুন, ক্যামেরার সামনে প্রথম দাঁড়ানো বিজ্ঞাপন নির্মাতা কৈলাস সুরেন্দ্রনাথ ও তার স্ত্রী আরতির কল্যাণে। যখন চুক্তিবদ্ধ হই, বয়স তখন ১৬। কখনোই তাদের সংস্পর্শ ত্যাগ করিনি। তিনি বয়সে অনেক বড়, অনেক দায়িত্বশীলও ছিলেন। তার কথা শোনা, তার সঙ্গে ঘুরে বেড়ানো, এগুলো অনেক কিছু শিখিয়েছে, অভিজ্ঞ করেছে। বাবার কাছ থেকে শিখেছি কীভাবে সৎ ও নির্ভুল থাকা যায়।

‘বিগ বস’ কিংবা ‘দশ কা দম’ এর মতো টিভি শো দর্শকদের সঙ্গে সম্পর্কটাকে আরো মজবুত করেছে, তাই না?

সালমান খান: পর্দায় দর্শক হিরো হিসেবে চেনে। কিন্তু এই টিভি শোতে তারা ব্যক্তি সালমানকে চেনার সুযোগ পায়। আমার পছন্দ অপছন্দ মূল্যায়নের সুযোগ পায়। কিছু পছন্দ করলে সেটি যেমন অভিব্যক্তিতে ফুটে ওঠে, কিছু অপছন্দ করলে সেটিও ফুটে ওঠে। এখানে লুকোছাপার কোনো সুযোগ নেই। আমি একজন স্বচ্ছ মানুষ। আমার মধ্যে কোনো অভিনয় নেই, ড্রামা নেই, কোনো মেলোড্রামাও নেই। চিন্তা-ভাবনা খোলাখুলি বলতেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করি।

ব্র্যান্ড সালমান খানের একটা দায়িত্ব আছে, সেটি সবসময় পূরণ করে চলা নিশ্চয়ই বেশ কঠিন?

সালমান খান: নিজের ভক্তকুল, পরিবার, ইন্ডাস্ট্রি সকলের প্রতি দায়িত্ব আছে। নিজের নাম, খ্যাতি এগুলো সমুন্নিত রাখার দায়িত্ব তো আছেই। সবসময় সতর্ক থাকতে হয়। কিন্তু কখনো কখনো মানুষ এতটাই সতর্ক হয়ে যায়, সত্যি বলতেও পিছু হটে তারা। এটিও কিন্তু ঠিক না। একজন রাজনীতিবিদ যা খুশি বলতে পারেন, একজন সাংবাদিক যা খুশি লিখতে পারেন, কিন্তু একজন ফিল্মস্টার যা খুশি করতে পারেন না।

ক্যারিয়ারের এই পর্যায়ে আসতে কী কী আত্মত্যাগ করতে হয়েছে?

সালমান খান: আমি প্রচণ্ড সৌভাগ্যবান যে তেমন কিছুই ত্যাগ করতে হয়নি। শুরু থেকেই কাজ উপভোগ করে এসেছি। কাজ ও আনন্দ এই দুটো একইসঙ্গে পাওয়া যায় না। কিন্তু সেটিই করি যা ভালোবাসি। পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটানো, সহকর্মীদের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক বজায় রাখাসহ যাদের পছন্দ করি না, তাদের সঙ্গেও যদি কাজ করতে হয়, সেখানেও ভালো সম্পর্ক বজায় রাখার চেষ্টা করি।

কবির খানের ‘টিউবলাইট’এ সিরিয়াস, পরোপকারী চরিত্রে দেখা গেছে, যে ধারাটা শুরু ‘বজরঙ্গী ভাইজান’ দিয়ে। এই ধরনের চরিত্রের প্রতি আকৃষ্ট কীভাবে?

সালমান খান: এই সিনেমার মাধ্যমে একটিই চাওয়া ছিল যে ভাইয়েরা মাসের পর মাস, বছরের পর বছর যোগাযোগ করেনি, তারাও যেন ভেদাভেদ ভুলে একে অন্যের কাছাকাছি আসে। আমি চাই সব বিভেদ ভুলে এক ভাই অপর ভাইকে বলুক, চলো সব পেছনে ফেলে আনন্দ করি। অনেক সময়ই দেখা যায় পরিবারে ভাইয়ে ভাইয়ে বিরোধ। কখনো সিরিয়াস ইস্যুতে, আবার কখনো খুবই তুচ্ছ কারণে। কিন্তু জীবনে এটার প্রভাব কেনো পড়তে দেবেন? এসব মাথায় রেখেই ছবিটা নির্মাণ করা।

কিন্তু সালমান, আসলেই কী একটি সিনেমা পারিবারিক বিরোধ মিটিয়ে দিতে পারে? জীবন বদলে দিতে পারে?

সালমান খান: নিঃসন্দেহে। এমন অনেক সিনেমা দেখেছি যেগুলো আমার জীবন বদলে দিয়েছে। আর বিশ্বাস করুন, একটি সিনেমা যদি আমাকে বদলাতে পারে, তাহলে পৃথিবীর যে কাউকেই বদলাতে পারে। সিনেমা মানসিকতায় ব্যাপক পরিবর্তন আনতে পারে। অন্ধকার রুমে যখন একটি চরিত্রকে গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করবেন, তখন মনে মনে তার আদর্শগুলোকেও নিজের মধ্যে ধারণ করবেন। হিরোর সৎ গুণাবলি নিজের মধ্যে ধারণ করতে চাইবেন। এ কারণেই ক্যারিয়ারে কখনো খল চরিত্রে অভিনয় করিনি। আর কখনো করবোও না।

কিন্তু এতে কী অভিনেতা হিসেবে সীমাবদ্ধ হয়ে পড়ছেন না?

সালমান খান: জানি না। একমাত্র দাবাং সিনেমাতেই বোধহয় আমার চরিত্র ভালো-খারাপের মাঝামাঝি। তার উদ্দেশ্য ভালো, কিন্তু কাজকর্ম খুব একটা ভালো নয়। সবসময়ই চেষ্টা করি ভালো চরিত্রগুলোকে পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে।

আপনার জনপ্রিয়তা নিঃসন্দেহে অনেক ঊর্ধ্বে। কিন্তু অনেকে কখনোই ভক্ত ছিলেন না, ভবিষ্যতেও হবেন না। একটি ভালো সিনেমাকেও হয়তো সাধুবাদ জানাবেন না, একমাত্র কারণ আপনি সেই সিনেমায় আছেন। অতীতের কিছু কর্মের জন্যই এমন প্রতিক্রিয়া। কী বলবেন?

সালমান খান: প্রচুর ঘুরে বেড়াই, অনেকের সঙ্গে আলাপও হয়েছে, কিন্তু কখনো এই ব্যাপারে আমাকে কেউ কিছু বলেনি। নিজেও এরকম কিছু কখনো লক্ষ্য করিনি। প্রশ্নের উত্তরে বলতে পারি, মানুষ নিজের কঠিন পরিশ্রম দিয়েই অতীতকে পেছনে ফেলতে পারে। জানি এটা রাতারাতি হবে না, কিন্তু বিশ্বাস করি একদিন তারা আমাকে একজন শিল্পী হিসেবে সাদরে গ্রহণ করে নেবে।

সমালোচকেরা কী অনেক সময় আপনার প্রতি অবিচার করেছেন?

সালমান খান: সত্যি বলছি, এসবে কিছুই যায় আসে না। তাদের কোনো অধিকার নেই শিল্পীর কঠোর পরিশ্রমকে নিচে নামানোর। এটা ঠিক করবেন দর্শকেরা, সমালোচকেরা নয়। এর প্রমাণ বক্স অফিস। তাদের কি অধিকার আছে একটি সিনেমাকে সমালোচনা করে ক্ষত বিক্ষত করার? মুক্তির প্রথম দিনেই যা মন চায় লিখে সমালোচনা করার অধিকার কে দিয়েছে? তাদের এই কর্মকাণ্ডের ফলে একটি সিনেমা ধ্বংস হয়ে যায়, এর পেছনে দেয়া অক্লান্ত পরিশ্রম বৃথা হয়ে যায়। এসবে একদম কান দেই না। এই মুহূর্তে তাদের বলছি, শূন্য কেনো, আমার ছবিকে মাইনাস ১০০ দিলেও কিছু যায় আসে না। ভক্তরা ঠিকই আমার ছবি দেখবে, আর এটাই সবচেয়ে বড় পুরষ্কার।

অনেক শিশু কিশোর আপনাকে আইডল মানে, আপনার মতো হতে চায়, আপনাকে অনুসরণ করে। কিন্তু ব্যক্তি হিসেবে আপনি কখনোই ঠিক নিখুঁত না। তারপরেও কেন আপনার মতো হতে চায়?

সালমান খান: দেখুন, অতীত তো সবারই থাকে। তাতে কি আজীবনের জন্য খারাপ হয়ে গেলেন? যা করেননি তার জন্য যদি আপনাকে দোষী করা হয়, সেটি খারাপ। ২০ বছর কিন্তু অনেক লম্বা সময়। ২০ বছর আমার পরিবারকে মামলার ঘানি টানতে হয়েছে, এর ব্যয় মেটাতে হয়েছে।

কিন্তু আদালত তো পিছু ছাড়ছেই না...

সালমান খান: ছাড়বে। সৃষ্টিকর্তা এই পরীক্ষায় ফেলেছেন। এগুলো না হলে হয়তো এতদিনে ক্যারিয়ারের খেঁই হারিয়ে ফেলতে পারতাম, তাই না? বিষয়গুলোকে এভাবেই দেখি। আমার যাত্রাটা কঠিন এবং বিশ্বাস করি এই কঠিন পথ পাড়ি দিতে পারব। পরিবার ও বন্ধুরা সবসময় পাশে ছিল, সমর্থনে ছিল, এটাও অনেক বড় পাওয়া।

আপনার বাবা টিভি শোতে বলেছেন অনেক বন্ধুই আপনাকে প্রয়োজনের সময় ব্যবহার করেছেন।

সালমান খান: মনে করি না কেউ আমাকে ব্যবহার করেছে। যার জন্য যা করার তা নিজে থেকেই করেছি। হ্যাঁ হয়তোবা কখনো কখনো বন্ধুদের কথা রাখার জন্য কিছু সিনেমা করেছি, মাঝপথে বিরক্তও হয়েছি।

আপনিই বোধহয় একমাত্র সুপারস্টার যিনি বলিউডে অনেক নতুন মুখকে সুযোগ করে দিয়েছেন।

সালমান খান: আমাকেও কেউ না কেউ সুযোগ দিয়েছে, তাই ঠিক একই কাজ করছি। আমার বেড়ে ওঠাটা খুব নিখুঁতভাবে হয়েছে। কারো প্রতি কোনো ঈর্ষা বোধ করি না, নিজের জায়গা নিয়ে অনিরাপত্তায় ভুগি না। মানুষকে সফল হিসেবে দেখতে পছন্দ করি, কারণ ভালো কাজ করলে পরিবারটাও ভালো থাকবে।

দুই ভাই পরিচালনায় নেমে পড়েছেন। সেরকম কিছু ভাবছেন না কী?

সালমান খান: এখনো পর্যন্ত ভাবছি না। পরিচালনা করার মতো পরিবারে যথেষ্ট মানুষ রয়েছে!

সূত্র: ফিল্মফেয়ার, হাফিংটন পোস্ট ও হিন্দুস্তান টাইমস

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস/এসজেড

আরোও পড়ুন
সর্বশেষ
শিক্ষা ও দক্ষতা উন্নয়নে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে: রাষ্ট্রপতি
শিক্ষা ও দক্ষতা উন্নয়নে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে: রাষ্ট্রপতি
ফের আলোচনায় সিলেট ছাত্রলীগ
ফের আলোচনায় সিলেট ছাত্রলীগ
ঝালকাঠিতে নির্বাচনী সহিংসতা প্রতিরোধে মতবিনিময় সভা
ঝালকাঠিতে নির্বাচনী সহিংসতা প্রতিরোধে মতবিনিময় সভা
বেনাপোলে ১৩ লাখ টাকাসহ যুবক আটক
বেনাপোলে ১৩ লাখ টাকাসহ যুবক আটক
বেঙ্গল টাইগার্সের প্রোমোশন ভিডিওতে বুমবুম তামিম
বেঙ্গল টাইগার্সের প্রোমোশন ভিডিওতে বুমবুম তামিম
প্রতিবাদের বিষয় হোক নারীর সম্মান
প্রতিবাদের বিষয় হোক নারীর সম্মান
কুমিল্লায় গৃহবধূ হত্যার অভিযোগে দেবর-শাশুড়ি গ্রেফতার
কুমিল্লায় গৃহবধূ হত্যার অভিযোগে দেবর-শাশুড়ি গ্রেফতার
পাকিস্তান থেকে ১২ ধাপ এগিয়ে বাংলাদেশ
পাকিস্তান থেকে ১২ ধাপ এগিয়ে বাংলাদেশ
এবার মেসি নিয়ে আরেক মন্তব্য ম্যারাডোনার
এবার মেসি নিয়ে আরেক মন্তব্য ম্যারাডোনার
মাস্টার্স পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি প্রকাশ
মাস্টার্স পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি প্রকাশ
জনসভায় যোগ দিতে সিলেট যাচ্ছেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা
জনসভায় যোগ দিতে সিলেট যাচ্ছেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা
খোকন হত্যা মামলায় তিন জনের মৃত্যুদন্ড
খোকন হত্যা মামলায় তিন জনের মৃত্যুদন্ড
রাজবাড়ীতে লালন উৎসবের প্রস্তুতি
রাজবাড়ীতে লালন উৎসবের প্রস্তুতি
বেনাপোল সীমান্তে আটক ১৪
বেনাপোল সীমান্তে আটক ১৪
সংসদ ভেঙে নির্বাচনের দাবিতে নীলফামারীতে বিক্ষোভ
সংসদ ভেঙে নির্বাচনের দাবিতে নীলফামারীতে বিক্ষোভ
আস্থা রাখুন, প্রধানমন্ত্রী সব দেবেন: র‌্যাব মহাপরিচালক
আস্থা রাখুন, প্রধানমন্ত্রী সব দেবেন: র‌্যাব মহাপরিচালক
ইস্কোকে খাসা  জবাব রোনালদোর
ইস্কোকে খাসা জবাব রোনালদোর
মেয়াদোত্তীর্ণ ইবি ছাত্রলীগের নেতাদের অত্যাচারে বিক্ষুদ্ধ ছাত্র-শিক্ষক
মেয়াদোত্তীর্ণ ইবি ছাত্রলীগের নেতাদের অত্যাচারে বিক্ষুদ্ধ ছাত্র-শিক্ষক
জনগণের জন্য কাজ করতে চাই : নজরুল ইসলাম
জনগণের জন্য কাজ করতে চাই : নজরুল ইসলাম
ক্রিকেটারের ফাঁসি
ক্রিকেটারের ফাঁসি
স্বপ্নপূরণ হচ্ছে ১০৯ মুক্তিযোদ্ধার
স্বপ্নপূরণ হচ্ছে ১০৯ মুক্তিযোদ্ধার
কালের সাক্ষী ২১২ বছরের ‘আকাশ’
কালের সাক্ষী ২১২ বছরের ‘আকাশ’
বিএনপি নেতা শামীম ও বক্করের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর
বিএনপি নেতা শামীম ও বক্করের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর
ফের নাটকে ‘তিনি’
ফের নাটকে ‘তিনি’
আখাউড়ায় ছাদ থেকে পড়ে শ্রমিক নিহত
আখাউড়ায় ছাদ থেকে পড়ে শ্রমিক নিহত
শিক্ষা বিষয়ক রিপোর্টারদের সংগঠন ‘বিইআরএফ’এর আত্মপ্রকাশ
শিক্ষা বিষয়ক রিপোর্টারদের সংগঠন ‘বিইআরএফ’এর আত্মপ্রকাশ
ফিজিও’র রিপোর্টে মুস্তাফিজ-রুবেলের ভাগ্য
ফিজিও’র রিপোর্টে মুস্তাফিজ-রুবেলের ভাগ্য
মানিকগঞ্জে উন্নয়ন কনসার্ট অনুষ্ঠিত
মানিকগঞ্জে উন্নয়ন কনসার্ট অনুষ্ঠিত
খালোদা জিয়ার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চেয়েছে দুদক
খালোদা জিয়ার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চেয়েছে দুদক
সেই মানুষটির পাশে তমা
সেই মানুষটির পাশে তমা
সর্বাধিক পঠিত
আজো হিমঘরে সন্তানের প্রতীক্ষায় ‘বাবা’!
আজো হিমঘরে সন্তানের প্রতীক্ষায় ‘বাবা’!
নোবেলের সঙ্গে যা করতে চান মোনালি
নোবেলের সঙ্গে যা করতে চান মোনালি
আইয়ুব বাচ্চু মারা গেছেন
আইয়ুব বাচ্চু মারা গেছেন
প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার সময়সূচি
প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার সময়সূচি
‘গোপন বিয়ে’ মুখ খুললেন রোদেলা
‘গোপন বিয়ে’ মুখ খুললেন রোদেলা
না ফেরার দেশে সালমানের ‘শেষ প্রেমিকা’
না ফেরার দেশে সালমানের ‘শেষ প্রেমিকা’
তুরস্কে দূতাবাস থেকে হেঁটে বেড়োলেন খাশোগি!
তুরস্কে দূতাবাস থেকে হেঁটে বেড়োলেন খাশোগি!
যেভাবে প্রথম বুবলীর ‘ভাই’
যেভাবে প্রথম বুবলীর ‘ভাই’
স্ত্রী ফিরে দেখে বাসায় অন্য নারী!
স্ত্রী ফিরে দেখে বাসায় অন্য নারী!
অনেকেই সাবান জমান কেউ গোসলই করেন না!
অনেকেই সাবান জমান কেউ গোসলই করেন না!
আর নিজেকে ‘কুমারী’ দাবির সুযোগ নেই দীপিকার!
আর নিজেকে ‘কুমারী’ দাবির সুযোগ নেই দীপিকার!
মৃত্যুর আগে কোথায় ছিলেন আইয়ুব বাচ্চু?
মৃত্যুর আগে কোথায় ছিলেন আইয়ুব বাচ্চু?
কাদের ওপর চটেছেন জেমস?
কাদের ওপর চটেছেন জেমস?
ধর্ষণ থেকে বাঁচতে ঝাঁপ দিল তরুণী, অতঃপর...
ধর্ষণ থেকে বাঁচতে ঝাঁপ দিল তরুণী, অতঃপর...
এক উঠোনে মসজিদ-মন্দির, প্রার্থনায় নেই বিবাদ
এক উঠোনে মসজিদ-মন্দির, প্রার্থনায় নেই বিবাদ
দুলাভাইয়ের কাছে শ্যালিকার আবদার!
দুলাভাইয়ের কাছে শ্যালিকার আবদার!
এবার মেয়েকে নিয়ে মারাত্মক কথা বললেন ঐশ্বরিয়া!
এবার মেয়েকে নিয়ে মারাত্মক কথা বললেন ঐশ্বরিয়া!
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বাচ্চুর ৬০টি গিটার!
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বাচ্চুর ৬০টি গিটার!
তারেককে ধ্বংসে ড. কামাল ইন: মইনুল
তারেককে ধ্বংসে ড. কামাল ইন: মইনুল
বন্ধুর ‘অকাল প্রয়াণে’ যা বললেন হাসান
বন্ধুর ‘অকাল প্রয়াণে’ যা বললেন হাসান
শিরোনাম:
প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় পাস করা শিক্ষার্থীদের ফের পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত: উপাচার্য প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় পাস করা শিক্ষার্থীদের ফের পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত: উপাচার্য জিয়া অরফানেজ মামলা: শুনানি পেছাতে খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের আবেদন খারিজ; দুদকের যুক্তি উপস্থাপন শেষ জিয়া অরফানেজ মামলা: শুনানি পেছাতে খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের আবেদন খারিজ; দুদকের যুক্তি উপস্থাপন শেষ জাতীয় নির্বাচনে রাজনৈতিক দলের জোট গঠন করে একদলের প্রার্থী, অন্য দলের প্রতীকে নির্বাচন অসাংবিধানিক ঘোষণা চেয়ে হাইর্কোটে রিট জাতীয় নির্বাচনে রাজনৈতিক দলের জোট গঠন করে একদলের প্রার্থী, অন্য দলের প্রতীকে নির্বাচন অসাংবিধানিক ঘোষণা চেয়ে হাইর্কোটে রিট