ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,   ফাল্গুন ৯ ১৪২৫,   ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০

ড্র করেও রেকর্ড গড়ল ব্রাজিল

পারভেজ আলম ডেইলি-বাংলাদেশ

 প্রকাশিত: ১৬:৩৬ ১৮ জুন ২০১৮  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

প্রত্যাশা অনুযায়ী বিশ্বকাপ শুরু হল না ব্রাজিলের। ফিলিপে কৌতিনহোর দুর্দান্ত এক গোলে শুরুতে এগিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে সেলেসাওরা।

রোববার রাতে রোস্তভ অ্যারেনায় শুরু থেকেই আক্রমণ শানায় ব্রাজিল। তবে সুইসদের গোলমুখ খুলতে সময় লাগে মাত্র ২০ মিনিট। এসময় বক্সের বাইরে থেকে দুর্দান্ত এক কিকে জাল খুঁজে নেন ফিলিপে কৌতিনহো।

চলতি বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সেরা তিন গোলের মধ্যেই থাকবে কৌতিনহোর সাফল্যটি। কেননা প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে নেয়া কৌতিনহোর বাঁকানো শটে বাঁদিক থেকে বল বাতাসে ভেসে অনেকটা বাঁক খেয়েই ডান পোস্টের কোনা দিয়ে জালে ঢুকে পড়ে, সেখানে হয়ত সুইস গোলরক্ষকের করার কিছুই ছিল না!

তবে কৌতিনহোর করা দৃষ্টিনন্দন ওই গোলটি ব্রাজিলকে নিয়ে গেছে রেকর্ডের অনন্য এক উচ্চতায়। গতকালের গোলটি সহ এ নিয়ে ১৯৬৬ সাল হতে ২০১৮ সালের রাশিয়া অবধি বিশ্বকাপে মঞ্চে ডি বক্সের বাইরে থেকে ব্রাজিলের করা ৩৭তম গোল। অন্য কোনো দল এক্ষেত্রে তাদের ধারেকাছেও নেই। বক্সের বাইরে থেকে জাল খুঁজে নেয়ায় দুইয়ে থাকা দলটি হতে ১১ গোল এগিয়ে সেলেসাওরা।

অন্যদিকে ড্রয়ের ম্যাচেও বিশ্বরেকর্ড গড়তে যাচ্ছিলেন ব্রাজিলের আরেক সেনসেশন নেইমার জুনিয়র। তবে সেটা নিজস্ব কারিশমায় নয়, প্রতিপক্ষের মারমুখি ক্রীড়া কৌশলের কারণে। গতরাতে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ব্রাজিলের ১-১ গোলে ড্র হওয়া ম্যাচে সবচেয়ে বেশি ১০বার ফাউলের শিকার হন সেলেসাওদের এই প্রাণভোমরা যা কিনা বিশ্বকাপের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। অর্থাৎ ১৯৯৮’র পর যেকোনও বিশ্ব আয়োজনে সর্বোচ্চ ফাউলের টার্গেট হয়েছেন নেইমার। এর আগে, ইংলিশ ফুটবলার অ্যালেন শেরির এক ম্যাচে ১১বার ফাউলের শিকার হয়েছিলেন। এতে করেই সব মিলিয়ে সুইসদের কৌশল এখন সমালোচনার মুখে।

এমনকি, ম্যাচ শেষে নেইমারের দাবি: স্টিভেন জুবে কর্নার থেকে হেডে গোল করার আগে মিরিন্ডাকে ফাউল করেছিলেন। তাই এসব বিষয়গুলোকে সামনে এনে পরের ম্যাচগুলোতে খেলোয়াড়দের আরও বেশি সুরক্ষার দাবি করেছেন এই মহাতারকা। নেইমার বলেন, ‘আমার মনে হয়েছে এটা ফাউল ছিলো। গোলের পর সবাই যখন উৎসব করছিলো, আমি রিপ্লে দেখছিলাম। এটা অবশ্য আমার বলার বিষয় নয়। এটা দেখার জন্য চারজন পেশাদার রেফারি ছিলেন। তাদের কাজটা তাদের করতে হবে।’

তবে সুইসদের বিপক্ষে ড্র কোনওভাবেই প্রত্যাশিত ছিলো না বলেও মন্তব্য করেন নেইমার। তিনি আরও বলেন, ‘এ ম্যাচে কোনওভাবেই ড্র প্রত্যাশিত ছিলো না। তার উপর আমাদের আরো ভালো খেলার সক্ষমতা রয়েছে। কিন্তু এটা এমন একটা ম্যাচ ছিলো, যেখানে আমার সবটা প্রদর্শন করা কঠিন ছিলো।’

উল্লেখ্য, ম্যাচের ৫০তম মিনিটে সুইস তারকা জারদান শাকিরির নেয়া কর্নারে নিখুঁত হেডে বল জালে জড়ান ২৬ বছর বয়সী মিডফিল্ডার স্টিভেন জুবে। অবশ্য তার সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন সেন্টার-ব্যাক মিরান্ডাকে দু’হাতে হাল্কা ঠেলে দেয়ার কারণেই জায়গা পেয়ে যান জুবে। এখানেই ফাউলের দাবি উঠে ব্রাজিলের। তবে সামনের ম্যাচ গুলোতে জয়ের ধারায় ফিরতে মরিয়া সেলেসাওরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ