ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,   ফাল্গুন ৮ ১৪২৫,   ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০

তালতলীতে পল্লী বিদ্যুতের বিলে নয়ছয়

তালতলী(বরগুনা) প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১১:৩৮ ১৫ নভেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১১:৩৮ ১৫ নভেম্বর ২০১৮

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

বরগুনার তালতলীতে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির, কলাপাড়া জোনাল অফিসের বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ গ্রাহকদের নামে গায়েবি ও নয়ছয় বিল করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, পটুয়াখালী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কয়েক মাস ধরে এসব গায়েবি বিল করায় অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন বিদ্যুৎ গ্রাহকরা। পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে অভিযোগ দিতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রায় প্রতিদিনই গ্রাহকরা এসব গায়েবি বিলের কাগজ নিয়ে হাজির হচ্ছেন।

এতে একদিকে গ্রাহকরা যেমন চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন, অন্যদিকে এসব ঝামেলা মেটাতে গিয়ে নিজেদের পকেট থেকে বাড়তি টাকা খরচ হচ্ছে।

উপজেলার আনোয়ার হোসেন তালুকদার বৃহস্পতিবার তালতলী প্রেস ক্লাবে এসে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, তার বিদ্যুৎ বিলের হিসাব নং-৩৪০-৪৩৯৫। তিনি তার বাড়িতে এনার্জি ৭, ১৫, ১৮ ও ২০ ওয়াটের সেভিং বাল্ব ব্যবহার করে গত মার্চ-২০১৮ পর্যন্ত ১২০ থেকে ১৫০ টাকা পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিল দিয়ে আসছেন।

হঠাৎ গত এপ্রিল ২০১৮ মাসে ৯ হাজার ২৪ টাকা বিদ্যুৎ বিল আসে। ঐ বিলের কাগজ নিয়ে কলাপাড়া জোনাল অফিসের ডিজিএমের কাছে অভিযোগ দিলে তিনি বলেন, এ মাসের টাকা জমা দেন আগামী মাস থেকে ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু পরবর্তী মে মাসেও ঐ হিসাব নম্বরে ১৪ হাজার ৮৬ টাকার বিল আসে।  এরপর থেকে আমি বিদ্যুৎ ব্যবহার করা বন্ধ করে দেই। ‘বিগত তিন মাস ধরে আমার মিটার থেকে কোন বিদ্যুৎ ব্যবহার না করলেও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি প্রতি মাসে গায়েবি বিল পাঠিয়ে দিচ্ছে।

পটুয়াখালীর কলাপাড়া জোনাল অফিসের আওতায় শতাধিক বিদ্যুত গ্রাহকরা বলেন, সরেজমিন তদন্ত সাপেক্ষে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

কলাপাড়া জোনাল অফিসের ডিজিএম শহিদুল ইসলাম বলেন, এ ধরনের অভিযোগ আসছে কিনা এমন কথা মনে নেই। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম